বুধবার ০৫ আগস্ট ২০২০
Online Edition

বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১৩

সংগ্রাম ডেস্ক: ঢাকা, সিলেট, গাজীপুর ও ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৩ জন নিহত ও ২১ জন আহত হয়েছে।

সিলেট ব্যুরো : সিলেটের তাজপুর-বালাগঞ্জ সড়কের রাজাপুর নামক স্থানে ট্রাক চাপায় ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন একটি অটোরিক্সার ৬ আরোহী। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার দিকে এ মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,  বালাগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী একটি মাল বোঝাই ট্রাক (ঝিনাইদহ-ট-১১-০৬৩৩) নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সিলেটগামী একটি ফোর স্ট্রোক অটোরিক্সার (সিলেট-থ-১১-৩০৯০) ওপরে ওঠে গেলে অটোরিক্সাটি চুর্ণ-বিচুর্ণ হয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন অটোরিক্সা চালকসহ ৬ যাত্রী। খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করে। নিহতরা হলো- বালাগঞ্জের শফিক মিয়ার পুত্র নজরুল ইসলাম (২৮), একই উপজেলার মৃত হারিছ মিয়ার পুত্র আব্দুল হান্নান (৩২), একই উপজেলার শফিক মিয়ার পুত্র কালাম মিয়া (৩৫), ওসমানী নগরের নেওয়ার মিয়া (৪০) ও তার ১২ বছরের শিশু পুত্র ছাদেক মিয়া, দক্ষিণ সুরমার রশিদপুরের আলা উদ্দিনের পুত্র তোফাজ্জল হোসেন (৫৫)। ঘাতক ট্রাকটি আটক করা হলেও চালক পালিয়ে গেছে।

কালিয়াকৈর(গাজীপুর) সংবাদদাতা : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সূত্রাপুর বোর্ডঘর এলাকায় যাত্রীবাহী বাসের সাথে একটি আলু বোঝাই ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই ৫ জন  নিহত ও কমপক্ষে  ২০ জন আহত হয় । এ ঘটনায় এক তরুণী নিখোঁজ রয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। বাস এবং ট্রাক সড়কের দুই পার্শ্বে পড়ে থাকায় এ মহাসড়কে প্রায় ৩ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বগুড়া থেকে ঢাকাগামী আলুভর্তি ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো-ট-১৪-১০৬২) সাথে এস আর পরিবহনের ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি যাত্রীবাহী বাসের (ঢাকা মেট্রো-ব-০২-০১৯৮) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দুর্ঘটনায় ট্রাকের চালক বগুড়ার ফুলতলা এলাকার মিন্টু মিয়া (৪৫) ও বগুড়ার শেরপুর উপজেলার পেরুয়া গ্রামের বাসিন্দা বাস চালক দুলাল মিয়া (৪৫) ট্রাক ও বাসের ভেতরেই মারা যায়। মহাসড়কের পাশ থেকে অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবক (৩০)  ও শিশুর (০৮) লাশ পুলিশ আসার আগেই স্বজনরা সরিয়ে নিয়ে যায় বলে এলাকাবাসী জানায় । অপর এক মহিলাকে কালিয়াকৈর থানা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেয়ার পথে বগুড়া সদর উপজেলার ফাপর গ্রামের বাসিন্দা হাসিনা বেগম (৪০) মারা যায়। এছাড়া, নিহত হাসিনার স্বামী আঃ জলিল জানায় ফেন্সি আক্তার (১৮) নামের তাদের মেয়েকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না । ফেন্সির ওড়না দিয়ে দুর্ঘটনা কবলিত বাসের দরজা বাধা রয়েছে। আহতদের কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও বাকীদের রায়েবা-সখিনা ক্লিনিক, কালিয়াকৈর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ট্রাক ও বাস মহাসড়কের ওপর দুমড়ে-মুচড়ে পড়ে থাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের চন্দ্রা ত্রিমোড় থেকে মির্জাপুর পর্যন্ত দীর্ঘ ১৫ কিলোমিটার যানযটের সৃষ্টি হয়। সকাল সাড়ে ১০টায় গোড়াই হাইওয়ে থানা পুলিশ রেকার দিয়ে বাস ও ট্রাক সরিয়ে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। যানজট এড়াতে কালিয়াকৈর থানা পুলিশও অংশ নেয়। এ ব্যাপারে গোড়াই হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ছানোয়ার হোসেন জানান, দুঘর্টনায় নিহত ৩ জনের নাম পরিচয় পাওয়া গেছে। বাকী দুজনকে পুলিশ দেখতে পায়নি।

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা : গতকাল উপজেলার দর্শারপাড় নামক স্থানে ট্রাক চাপায় ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল চালক  ধোবাউড়া উপজেলার মুন্সীরহাটের চক্রনাদিঘিরপাড় নামক স্থানের মৃত আজিজুর রহমানের পুত্র আবু কায়সার সনি (২২) ট্রাক চাপায় ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। আহত আরোহীর পরিচয় জানা যায়নি। এ ব্যাপারে হালুয়াঘাট থানায় মামলা হয়েছে। ট্রাক ঢাকা মেট্রো- ট ১৪- ৯০ -৯৪ থানায় আটক রয়েছে। চালক পলাতক রয়েছে। উল্লেখ্য, মোটরসাইকেল চালক সনি এক আরোহীকে নিয়ে মুন্সীরহাট থেকে দর্শারপাড় নামক স্থানে পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাক চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। মুমূর্ষু আরোহী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  চিকিৎসাধীন রয়েছে।

দোহার (ঢাকা) সংবাদদাতা : ঢাকা নবাবগঞ্জ উপজেলার গালিমুর হতে ঢাকা-মাওয়া সড়কে নোয়াদ্দা স্থানে গাড়ি চাপায় ১ শিশু নিহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৭টায় গালিমপুর সড়কে শিতল পরিবহনের একটি গাড়ি শিশু মেহারুন নেসাকে (৭) চাপা দিলে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার জের ধরে উত্তপ্ত হয়ে এলাকাবাসী গাড়িটি ভাংচুর করে। তাছাড়া, অগ্নিসংযোগের ফলে কয়েক ঘণ্টা ঐ সড়কে গাড়ি চলা চল বন্ধ থাকে। মেহারুন নেসা রাস্তা পারাপারের সময় এ ঘটনাটি ঘটে।  

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ