শনিবার ১১ জুলাই ২০২০
Online Edition

কাশ্মীরে স্বাধীনতা আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা ৪০ হাজার -ভারত

নয়াদিল্লী থেকে এএফপি : দু'দশকেরও বেশি সময় আগে কাশ্মীরে শুরু হওয়া স্বাধীনতা আন্দোলনে এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ হাজার মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। গত বুধবার ভারতের পার্লামেন্টে এ তথ্য জানানো হয়। জুনিয়র স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র প্রাসাদ পার্লামেন্টকে জানান, চলমান এ সহিংসতায় এ সময়ে নিহতের সংখ্যা ৩৯ হাজার ৯শ' ১৮ জন। এর মধ্যে নিহত ২১ হাজার ৩শ' ২৩ স্বাধীনতাকামীকে সন্ত্রাসী হিসেবে বর্ণনা করেন তিনি। বিতর্কিত ঐ অঞ্চলে দিল্লীর শাসনের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণকারী মুসলিম স্বাধীনতাকামী যোদ্ধাদের ভারত ‘মুসলিম জঙ্গি' নামে সম্বোধন করে থাকে। মন্ত্রী পার্লামেন্টকে জানান, ১৯৯০ থেকে ২০১১ সালের এপ্রিল পর্যন্ত সময়ের মধ্যে জম্মুও কাশ্মীরে সহিংসতায় ১৩ হাজার ২২৬ জন বেসামরিক নাগরিক এবং নিরাপত্তা বাহিনীর ৫ হাজার ৩৬৯ জন সদস্য নিহত হয়েছে। তবে মন্ত্রীর দেয়া এ তথ্য ভারতশাসিত কাশ্মীরের পুলিশের দেয়া হিসেবের চেয়ে অনেক কম। তাদের হিসেব অনুযায়ী নিহতের সংখ্যা ৪৭ হাজারেরও বেশি।

কয়েকটি মানবাধিকার সংগঠনের পরিসংখ্যন মতে ১৯৮৯ সালের শেষদিকে শুরু হওয়া এ স্বাধীনতা আন্দোলনে নিহতের সংখ্যা লাখের কাছাকাছি। তবে ২০০৪ সালে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে শান্তি আলোচনা শুরু হওয়ার পর ভূ-স্বর্গ খ্যাত কাশ্মীরে সংঘাত-সহিংসতা এবং হতাহতের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পায়। গত মাসে মিথ্যা বন্দুকযুদ্ধের অজুহাতে এক কাশ্মীরীর পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনের মাধ্যমে মৃত্যুর বিষয় প্রমাণিত হওয়ায় ৩ পুলিশ ও এক সেনা সদস্যকে গ্রেফতারের পর এ বিবৃতি দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত ছবিরমত সুন্দর পৃথিবীর অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান ‘কাশ্মীর'। ১৯৪৭ সালে বৃটেনের কাছ থেকে ভারত ও পাকিস্তান স্বাধীন হওয়ার পর থেকে ঐ অঞ্চল নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে পরমাণু বোমার অধিকারী দেশ দু'টোর মধ্যে দু'বার যুদ্ধও হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ