ঢাকা, বৃহস্পতিবার 25 July 2024, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৮ মহররম ১৪৪৬ হিজরী
Online Edition

পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে পিএসসির সামনে ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের বিক্ষোভ

সংগ্রাম অনলাইন: প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) সামনে বিক্ষোভ করছেন চাকরি প্রত্যাশী ডিপ্লোমা প্রকৌশলীরা।

আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকার আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের (বিপিএসসি) সামনে চাকরি প্রত্যাশী ডিপ্লোমা প্রকৌশলীগণের ব্যানারে মানববন্ধন শুরু হয়। 

মানববন্ধনে অংশ নেওয়া চাকরিপ্রত্যাশীরা দাবি—রেল মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশে রেলওয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী পদের পরীক্ষা গত ৫ জুলাই অনুষ্ঠিত হয়। সে পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে, তাই এই পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। একই সঙ্গে প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও পুনরায় নিয়োগ পরীক্ষা দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে।

মানববন্ধন শেষে চাকরিপ্রত্যাশীরা পিএসসির দক্ষিণ গেটের সামনে জড়ো হন। এ সময় তাঁরা ‘প্রশ্ন ফাঁসের পরীক্ষা বাতিল চাই, বাতিল চাই’, ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায়, দুর্নীতির ঠাঁই নাই’ স্লোগান দিতে থাকেন। 

এ দিকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)। পিএসসির চেয়ারম্যান মো. সোহরাব হোসাইন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

পিএসসি সূত্র বলছে, কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে সরকারি কর্ম কমিশনের যুগ্ম সচিব আব্দুল আলীম খানকে। আর কমিটির সদস্য পিএসসির পরিচালক দিলাওয়েজ দুরদানা। তদন্ত কমিটির সদস্যসচিব করা হয়েছে পিএসসির পরিচালক মোহাম্মদ আজিজুল হককে।

গতকাল বাংলাদেশ রেলওয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী পদসহ বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত থাকার অভিযোগে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) দুজন উপপরিচালক, একজন সহকারী পরিচালকসহ ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

সিআইডি জানিয়েছে, পিএসসির উপপরিচালক মো. আবু জাফর ও জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী পরিচালক মো. আলমগীর কবির, কর্মচারী (ডেসপাস রাইডার) মো. খলিলুর রহমান ও অফিস সহায়ক সাজেদুল ইসলাম এবং সাবেক গাড়িচালক সৈয়দ আবেদ আলী ও তাঁর ছেলে সৈয়দ সোহানুর রহমান, সাবেক সেনাসদস্য নোমান সিদ্দিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও মিরপুরের ব্যবসায়ী আবু সোলায়মান মো. সোহেল, অডিটর প্রিয়নাথ রায়, ঢাকার ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অফিসে কর্মরত মো. মামুনুর রশিদ, নারায়ণগঞ্জ পাসপোর্ট অফিসের নিরাপত্তা প্রহরী মো. শাহাদত হোসেন, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের টেকনিশিয়ান নিয়ামুন হাসান, ব্যবসায়ী সহোদর মো. সাখাওয়াত হোসেন ও সাইম হোসেন, ব্যবসায়ী মো. জাহিদুল ইসলাম এবং যুবক লিটন সরকার গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ