মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০২৪
Online Edition

করতোয়া নদী এখন অতিথি পাখিদের কল কাকলিতে মুখরিত

আব্দুস ছামাদ খান : করতোয়া নদী মুখরিত হয়ে উঠেছে অতিথি পাখির কলতানে। শীত প্রধান দেশ থেকে প্রতি বছরই পাখিরা নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য এই নদীতে আসে। শীতের এই মৌসুমে করতোয়া নদী অতিথি পাখির আগমনে মুখরিত থাকে। ভোর থেকে রাত পর্যন্ত পাখির কিচিরমিচির কলতানে মুখরিত হয়ে ওঠে নদী এলাকা। প্রতিদিন পাখির জলকেলির এই দৃশ্য দেখার জন্য নদীর পাড়ে ভিড় করে বিভিন্ন শ্রেণির মানুষ। পাখির কিচিরমিচির শব্দে ঘুম ভাঙে নদীপারের মানুষের।

সরেজমিনে দেখা যায়, করতোয়া নদীতে সাঁতার কেটে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি এর মধ্যে নীলশির, লালশির, কালো হাঁস, বালিহাঁস, খুদে গাঙচিল, বক ও পানকৌড়ি পাখি অন্যতম। দিনভর নদীতে খাবার খুঁজে বেড়াচ্ছে সাদা বক, ধূসর বক ও মাছরাঙা। মাঝেমধ্যে গাঙচিল নদীতে মাছ ধরার জন্য ছোঁ দিলে ঝাঁক বেঁধে উড়াল দিচ্ছে অতিথি পাখির দল। সব মিলিয়ে করতোয়া নদী এখন পাখিদের অভয়ারণ্য হয়ে উঠেছে। স্থানীয়রা জানান, সিরাজগঞ্জের শাহ শরীফ জিন্দানি (রহ.) পুণ্যভূমি নওগাঁ ঘেঁষে প্রবাহিত করতোয়া নদী একসময় অনেক বড় ছিল। কিন্তু কালের বিবর্তণে নদীর দু’পাড়ে বসতি স্থাপন হওয়ায় নদীটি অনেকটাই সরু হয়ে গেছে। অন্যদিকে নদীর পাশ দিয়ে মহাসড়ক, সড়ক ও বিভিন্ন অবকাঠামো নির্মাণের কারণে নদীটি আরও সংকুচিত হয়ে পড়েছে। এর প্রেক্ষাপটে জীববৈচিত্র্য ইতোমধ্যে হুমকির মুখে পড়েছে। পাখি হারাচ্ছে নিরাপদ আশ্রয়স্থল। কমেছে অতিথি পাখির আনাগোনা। তার পরও প্রতিবছর শীত মৌসুমে এই নদীতে ঝাঁক বেঁধে আসছে অতিথি পাখিসহ দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন পাখি।

নওগাঁ গ্রামের বাসিন্দা মো. আলহাজ আলী খন্দকার বলেন, ‘প্রতিবছরের মতো এ বছরও হাজার হাজার পাখি খাবারের আশায় আমাদের এলাকায় এসেছে। আর নিরাপদ আশ্রয়ের অভাবে তারা জড়ো হচ্ছে করতোয়া নদীতে। নদীর পাড়ে গাছপালা বেশি থাকায় এটাকে পাখিরা নিরাপদ আশ্রয়স্থল মনে করে। তাই সবাই মিলে অতিথি পাখি ও দেশীয় প্রজাতির পাখির একটি নিরাপদ আশ্রয়স্থল তৈরি করতে উদ্যোগ নিয়েছি। তবে এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা ও পরামর্শও কামনা করছি।’

সিরাজগঞ্জ দ্য বার্ড সেফটি হাউসের (পরিবেশবান্ধব) চেয়ারম্যান মামুন বিশ্বাস বলেন, ‘পাখি পরিবেশবান্ধব এবং সৌন্দর্যের প্রতীক। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় পাখির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে এবং পাশাপাশি সবাইকে সচেতনও হতে হবে।’

গত সম্পত্তি নয়। ঐক্যবদ্ধ হোন, দেশকে বাঁচান। দুর্নীতিমুক্ত সমাজ, সাংবিধানিক অধিকার এবং ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার পথ সুগম করুন। এর আগে আজ সকালে একদফা দাবিতে দুদিনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। আগামী ২৬ জানুয়ারি দেশের সকল জেলা সদরে এবং ২৭ জানুয়ারি দেশের সকল মহানগরে কালো পতাকা মিছিল করবে দলটি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ