শনিবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩
Online Edition

এদেশে বাঙালি মুসলিম সংস্কৃতির বিপ্লব সাধিত হবে  ----মাহমুদুর রহমান

বাংলা সাহিত্য অঙ্গন এর উদ্যোগে গতকাল শনিবার অনলাইনে জাতীয় তরুণ লেখক সম্মেলন ২০২৩ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলা সাহিত্য অঙ্গনের উপদেষ্টা নুরুল ইসলামের সঞ্চালনায়, সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন  দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক, বিশিষ্ট সাংবাদিক, লেখক ও বুদ্ধিজীবী মাহমুদুর রহমান, প্রধান আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও কলামিস্ট জিয়াউল হক, বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট কবি ও সম্পাদক মোশাররফ হোসেন খান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক, কবি ও গবেষক ড.মাহফুজুর রহমান আখন্দ এবং অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা সাহিত্য অঙ্গনের আহ্বায়ক তৌহিদুল ইসলাম আকবর। উক্ত সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বাংলা সাহিত্য অঙ্গনের উপদেষ্টা, নতুন এক মাত্রা পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক  ড. ফজলুল হক তুহিন।

প্রধান বলেন, “আমি স্বপ্ন দেখি এদেশে বাঙালি মুসলিম সংস্কৃতির বিপ্লব সাধিত হবে। আর সেটা হবে তোমাদের মত তরুণ লেখক, সাহিত্যিক ও গবেষকদের হাত ধরে। তোমাদের আগাম সালাম।”

তিনি আরও বলেন, “বাঙালি জাতীয়তাবাদ আমাদের সংস্কৃতি হতে পারে না। আমাদের সংস্কৃতি বাঙালি মুসলিম সংস্কৃতি। আমাদের একযোগে বলতে হবে বাঙালি হিন্দু সংস্কৃতি এবং বাঙালি মুসলিম সংস্কৃতি একদম আলাদা, আলাদা, আলাদা।”

ড. জিয়াউল হক বলেন, “আজকের এই তরুণ লেখক সম্মেলন'২৩ এ যারা উপস্থিত হয়েছেন আপনারাই আমাদের আগামীর ড. মাহফুজুর রহমান আখন্দ, মোশাররফ হোসেন খান, ড. ফজলুল হক তুহিন। বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষ থেকে যদি ১৮ জনও যোগ্য সাহিত্যিক তৈরি হয় সেটাই হবে আমাদের সফলতা।” কবি মোশাররফ হোসেন খান বলেন, “তোমরা তরুণরা যারা লিখছো; মাথায় রাখবে, কী লিখছি? কেন লিখছি? কাদের জন্য লিখছি?”

তিনি আরও বলেন, “প্রতিটি ভালো লেখা সদকায়ে জারিয়া। যা দুনিয়া ও পরকালে সওয়াবের ধারা অব্যাহত রাখবে। অপরদিকে প্রতিটি খারাপ লেখাই গোনাহের ধারা অব্যাহত রাখবে।”

ড. মাহফুজুর রহমান আখন্দ বলেন, “আমার যে প্রতিভা সেটার একটা দায়বদ্ধতা আছে। মহান আল্লাহ'র কাছে জবাবদিহি করতে হবে। সুতরাং প্রতিভাকে নফল, সুন্নাহ্, মুবাহ্, মুস্তাহাব না ভেবে ফরজে আইন মনে করে কাজ করতে হবে।”

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ