ঢাকা, বুধবার 01 February 2023, ১৮ মাঘ ১৪২৯, ৯ রজব ১৪৪৪ হিজরী
Online Edition

জামায়াতের বিক্ষোভে পুলিশের হামলা, পথচারিসহ আটক ৯জন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

তরুণ প্রজন্মকে নাস্তিক বানানোর ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে: ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম বলেছেন, সুইডেনে পবিত্র কোরআন শরীফ পুড়িয়ে মুসলমানদের হৃদয়ে আঘাত হেনেছে কুলাঙ্গাররা। একইভাবে বাংলাদেশে জাফর ইকবালের মতো কুলাঙ্গাররা পাঠ্যপুস্তকে ধর্মবিদ্বেষ ঢুকিয়ে নতুন প্রজন্মকে নাস্তিকতাবাদের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। 

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বরে পাঠ্যপুস্তকে বিবর্তনবাদ এবং সুইডেনে পবিত্র কুরআন পোড়ানোর প্রতিবাদে এবং অবিলম্বে শিক্ষা কারিকুলাম থেকে আপত্তিকর অধ্যায় প্রত্যাহার করার দাবিতে এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশে এসব কথা বলেন।

বিক্ষোভ মিছিলটি রাজধানীর মিরপুর-১০ গোল চত্তর থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে শেওড় পাড়া এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারি সেক্রেটারি মাহফুজুর রহমান, নাজিম উদ্দিন মোল্লা ও ডা. ফখরুদ্দীন মানিক,  ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য জামাল উদ্দীন, মু. আতাউর রহমান সরকার ও নাসির উদ্দীন, শহীদুলুল্লাহ  ও ছাত্রনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন প্রমুখ। সমাবেশ চলাকালের পুলিশ সমাবেশের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পথচারীসহ কয়েক জনকে আটক করে। 

ড. রেজাউল বলেন, তরুণ প্রজন্মকে ধর্ম বিদ্বেষী বানানোর জন্য পাঠ্যপুস্তকে ইসলাম বিদ্বেষ ঢুকানো হয়েছে। বাংলাদেশের তুরুণ প্রজন্মকে নাস্তিক বানানোর ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে। অবিলম্বে এই পাঠ্যপুস্তক বাতিল করতে হবে। নতুবা এর বিরুদ্ধে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন তিনি। 

তিনি অবিলম্বে কুরআনে অগ্নিসংযোগকারী উগ্রবাদীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার আহবান জানান। অন্যথায় বিশ্বের মুসলিমরা সুইডেনের সাথে সকল সম্পর্ক ছিন্ন করতে বাধ্য হবে। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানান। 

মহানগরী সেক্রেটারি বলেন,  নির্যাতন  ও গ্রেফতার করে আন্দোলন দমন করা যাবে না। অবিলম্বে আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমান, আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী,  এটিএম আজহারুল ইসলাম, মাওলানা আ ন ম শামসুল আলম, অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার ও মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান সহ সকল রাজবন্দীর নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ