শুক্রবার ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Online Edition

ভবন ঝুঁকিপূর্ণ ॥ মাঠে পাঠদান

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাবুটি পাড়া ইউনিয়নের রামপুর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিত্যক্ত ভবনের সামনে গাছতলায় মাঠের মধ্যে পাঠদান-ছবি : আবু ইউসুফ

মুরাদনগর (কুমিল্লা) সংবাদদাতা : ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় বিদ্যালয়ের ভবন পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয় ২০১৩ সালে। গত ৯ বছর যাবত ভাড়া করা ঘরে পাঠদান করা হলেও গত দুই মাস ধরে পরিত্যক্ত ভবনের সামনের মাঠে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। এতে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। মঙ্গলবার এমন চিত্রটি চোখে পড়ে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাবুটি পাড়া ইউনিয়নের রামপুর দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের। পরিত্যক্ত ভবনের সামনের গাছতলায় মাঠের মধ্যে পাঠদান চলতে দেখা যায়, তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের। 

সরেজমিনে দেখা যায়, ওই বিদ্যালয়টি ১৯৪০ সালে স্থাপন করা হয়। ওই সময় চিনের চালা দিয়ে কোন রকমে পাঠদান করা হতো। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে একটি ভবন করা হয়। এরপর গত ৫০ বছরেও এ বিদ্যালয়ে অন্য কোন ভবন হয়নি। ২০১০ সালে একটি ভবন বরাদ্দ হলেও মাঠ ভরাটের অভাবে কাজ করা সম্ভব হয়নি। পুরোনা একমাত্র ভবনটি মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় ২০১৩ সালে এ ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। এরপর পাশের চন্দন ডাক্তার ও হিন্দু বাড়িতে পাঠদান করা হয়। ইতোমধ্যে বিদ্যালয়ের ভরাট করা মাঠে চলে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। পুরোনো এ ভবনের ভাঙা দরজা-জানালায় উঁকি দিয়ে দেখা যায়, প্রতিটি শ্রেণিকক্ষেরই ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ে রড বেরিয়ে গেছে। কক্ষের দেয়াল ও পিলারগুলোতে ফাটল দেখা দিয়েছে। 

২০১৩ সালে এ বিদ্যালয়ে ৪২৩ জন শিক্ষার্থী ছিল। ভবন না থাকায় লেখাপড়া করতে কষ্ট হওয়ায় শিক্ষার্থীরা আশ-পাশের অন্য বিদ্যালয়ে চলে গেছে। অনেকে লেখা-পড়া থেকে ঝড়ে পড়েছে। বর্তমানে এ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৮০ জন। বিদ্যালয়ের অভিভাবক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা দ্রুত একটি ভবন বরাদ্দ দেয়ার জন্য সরকারের নিকট দাবি করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ