ঢাকা, শনিবার 26 November 2022, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরী
Online Edition

মানবিক সহায়তা কার্যক্রমে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন : ডাঃ শফিকুর রহমান

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির ডা. শফিকুর রহমান বলেছেন, ‘সুধীদের ভালোবাসা, চোখের পানি মিশ্রিত দোয়া, সেই সাথে আর্থিকসহ সার্বিক সহযোগিতা আমরা পেয়ে থাকি। এই সহযোগিতা করেন বলেই জামায়াতে ইসলামী সমাজের দুঃখী মানুষের জন্য কিছু করার সুযোগ পায়।’ মানবিক সহায়তার কার্যক্রমে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনাদের সার্বিক সহযোগিতার ফলেই আপনাদের প্রত্যাশিত কাফেলার বাগানে গোলাপ ফুটবে। সেই গোলাপের সৌরভে বাংলাদেশ পবিত্র হবে। আল্লাহর কুরআনের রাজ কায়েম হবে। কুরআনের আইনে মানুষ সম্মান, ইজ্জত ভোগ করবে। আমরা সেই দিনটার জন্য লড়াই করছি।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুল।

কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমির মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, সহকারী সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট ড. মো: হেলাল উদ্দিন।

এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন- যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী জামাল উদ্দিন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মেসবাহ উদ্দিন সাঈদ প্রমুখ। সভায় মহানগরী দক্ষিণের সমাজসেবা ও সমাজ কল্যাণকমূলক কার্যক্রমের প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়।

ডা. শফিকুর রহমান বলেন, আমাদের সুধীদের জন্য আল্লাহর দরবারে দোয়া করি। আল্লাহ যেন তাদের কল্যাণ দান করেন। সুধীদের ভালোবাসা, চোখের পানি মিশ্রিত দোয়া, সেই সাথে আর্থিকসহ সার্বিক সহযোগিতা পেয়ে থাকি। এই সহযোগিতা করেন বলেই জামায়াতে ইসলামী সমাজের দুঃখী মানুষের জন্য কিছু করার সুযোগ পায়। রাজধানীর সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস, লাশ দাফন, রোগীর সেবা, কর্যে হাসানা, পুনর্বাসন, তৃণমূল পর্যায়ে গরীব-দুঃখী মানুষের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা। আরো অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ কাজ তারা হাতে নিয়েছে। এই কর্মসংস্থানের উদ্যোগকে সফল ও টেকসই করার জন্য অনেকগুলো কৌশলগত ও কারিগরি কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।

 

 

জামায়াতের আমির বলেন, ‘আমরা অন্তর থেকে কামনা করি, রাজধানীর দুই মহানগরী শাখা মানবতার সেবায় অনন্য নজির স্থাপন করতে পারেন। এটি তখনই সম্ভব হবে, যখন আপনাদের খোলা হাত আরো একটু আল্লাহর দিকে এগিয়ে যাবে।’ তিনি বলেন, আপনাদের আমানত যথাযথ হকদারের কাছে পৌঁছে দিতে সংগঠন আন্তরিক ও দায়বদ্ধ। আমরা সদা সর্তক থাকার চেষ্টা করে থাকি।

 

তিনি বলেন, মহানগরী দক্ষিণ অনেকগুলো ঐতিহাসিক পদক্ষেপ নিয়েছে। বিশেষ করে, শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। আপনাদের দেয়া আমানত নিয়ে তারা সরাসরি দুঃখী মানুষের কাছে চলে গিয়েছিলেন। এর ফলে সমাজের দুঃখী মানুষের অভাব কিছুটা হলেও লাঘব হবে। ভালো কাজের আবাদ হচ্ছে। এতে অন্যরা এই কাজে উৎসাহিত হবেন। তিনি উল্লেখ করেন, প্রত্যেকটা ভালো কাজে নিয়ত সহিহ হওয়া দরকার।

 

সভাপতির বক্তব্যে নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, মহান আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, সম্পদশালীদের সম্পদে হক রয়েছে যারা প্রার্থী তাদের। যারা বঞ্চিত তাদের হক রয়েছে। রাসূল সা: বলেছেন যারা মানুষের প্রতি দয়া করে না; আল্লাহ তাদের প্রতি দয়া করেন না। আল্লাহ তার প্রতি সহযোগিতা করেন; যিনি মানবতার কল্যাণে হাত বাড়িয়ে দেন।

তিনি চলতি বছরে ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সমাজকল্যাণমূলক বিভিন্ন কার্যক্রমের বিবরণ তুলে ধরে বলেন, অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে এই বছরে ব্যাপকভাবে মানুষের প্রয়োজনে আমরা পাশে দাঁড়িয়েছি এবং ভবিষ্যতে আরো ব্যাপকভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই। সেই ব্যাপকভিত্তিক সমাজ কল্যাণমূলক কাজে আপনার যাকাতের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ প্রদান করে অবদান রাখবেন সেই প্রত্যাশা করছি। মহানগরীর সমাজ কল্যাণমূলক কাজের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আপনাদের হাত আরো সম্প্রসারিত করবেন। আমরা যেসব কার্যক্রম হাতে নিয়েছি তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে চাই। আপনারা আস্থা রাখতে পারেন, আপনাদের দেয়া সহযোগিতা যথাযথভাবে আয়-ব্যয় এবং তা সঠিকভাবে প্রদান করতে আমরা সচেষ্ট থাকবো, ইনশাআল্লাহ। যারা মানবেতর জীবন যাপন করছেন তাদের পাশে আমাদের ভাইয়েরা আন্তরিকতার সাথে সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তিনি সমাজের কল্যাণমূলক কাজে বিত্তবান সকলকে এগিয়ে আসার উদ্বাত্ত্ব আহ্বান জানান।

মঞ্জুরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, সূরা মুনাফিকুনের ১০ নম্বর আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন, ‘হে মুমিনগণ আমি তোমাদেরকে যা দান করেছি তা থেকে দান করো, সেদিন আসার পূর্বে যেদিন কোনো বন্ধু সুপারিশকারী থাকবে না। তোমরা খরচ করো তোমাদের মৃত্যু আসার আগেই।’ বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী মানবতার সেবায় বহুবিধ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে, এসব কাজ পরিচালনায় সম্মানিত দাতা সুধীদের সার্বিক সহযোগিতা আমাদের একান্ত প্রয়োজন।

ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ বলেন, আমরা নিছক একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে নয় বরং মানবতার কল্যাণের জন্য আমাদের আখেরাতের কল্যাণ নিশ্চিত করার জন্য, তথাপি সুখি-সমৃদ্ধ একটি রাষ্ট্র বিনির্মাণ করার প্রয়োজনে আমরা মানুষের পাশে থেকে ভূমিকা পালন করে যাচ্ছি। সামাজিক সুরক্ষা, ন্যায়বিচার, মানবতাকে উজ্জীবিত করার জন্য আমরা নানাবিধ সমাজ কল্যাণমূলক কাজ পরিচালনা করে আসছি। সে কাজে সম্মানিত সুধী ভাই-বোনদের সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে পাশে থাকার আহ্বান রাখছি।

সুধী সমাবেশে জামায়াতের আমির ডা. শফিকুর রহমান ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সমাজকল্যাণ ও মানবসেবা কর্মসূচির এ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসে আরো দু’টি এ্যাম্বুলেন্সের উদ্বোধন করেন (একটি লাশবাহী ফ্রিজিং এ্যাম্বুলেন্স ও একটি সর্বাধুনিক শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এম্বুলেন্স)। নতুন দু’টি এ্যাম্বুলেন্সসহ মোট ৯টি এ্যাম্বুলেন্স দিয়ে ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ জামায়াত রাজধানী ও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে মানবতার কল্যাণে ফ্রি সেবা কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ