শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর ২০২২
Online Edition

খুলনায় মন্ত্রীর উপস্থিতিতে সেই ‘সিরিজ পকেটমার’ গ্রেফতার

গতকাল শুক্রবার বুক সোসাইটির ৪৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্য রাখেন সোসাইটির সভাপতি ও সাবেক সচিব আ.জ.ম. শামসুল আলম

খুলনা ব্যুরো: অবশেষে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেন সেই ম্যারাথন পকেটমার ইছাহাক শেখ (৫৭)। বৃহস্পতিবার (০৪ আগস্ট) বিকেল ৪ টার দিকে রূপসার পুরাতন ফেরিঘাট থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি রূপসা উপজেলার জজ আলী শেখের ছেলে। পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জিয়াউর রহমান বলেন, গ্রেফতারকৃত ইছাহাক শেখ একজন পেশাদার পকেটমার। তার সংঘবদ্ধ একটি চক্র রয়েছে। যেখানে দলীয় অনুষ্ঠানের ভিড় দেখে সেখানে গিয়ে মানুষের পকেট থেকে টাকা ও মূল্যবান জিনিস হাতিয়ে নেয়া তার কাজ। বৃহস্পতিবার রূপসা পুরাতন ফেরিঘাট থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে অনেক তথ্য পাওয়া যাবে। ওই দিন তিনি কপিলমুনি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজুর পকেট থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন, কপিলমুনি ২ নং ওয়ার্ড চেয়ারম্যানের পকেট থেকে ৯ হাজার টাকা ও কপিলমুনি আওয়ামী লীগ সভাপতি যুগল কিশোরদের পকেট থেকে এক হাজার ৮০০ টাকা তুলে নেয়। সাংবাদিকদের ধারণ করা একাধিক ছবিতে দেখা যায়, মন্ত্রীর সামনে দাঁড়িয়ে থাকা খর্বাকৃতি প্রকৃতির মধ্য বয়স্ক মাস্ক পরা ব্যক্তি কপিলমুনি আওয়ামী লীগের সভাপতি যুগল কিশোর দের পাঞ্জাবির পকেটে কৌশলে হাত ঢুকিয়ে দিয়েছেন। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, পুলিশ সদস্য উপস্থিত থাকলেও পকেটমার সুকৌশলে তার কাজ করে যাচ্ছেন। স্থানীয়রা তাদের প্রতিক্রিয়ায় ঘটনাটিকে ‘ম্যারাথন পকেটমার’ বলে অভিহিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২ আগস্ট বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানী স্যার পিসি রায়ের ১৬১ তম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে সকালে সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি কপিলমুনি বধ্যভূমি (স্মৃতিসৌধ) পরিদর্শন করেন। এসময় অতিরিক্ত ভিড়ের চাপে ম্যারাথন পকেটমারীর ঘটনা ঘটে। বিষয়টি দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। পরে ওই পকেটমারকে গ্রেফতারে অভিযানে নামে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ