মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
Online Edition

ইসি আবারো বিশেষ সংলাপ করবে

মিয়া হোসেন: রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে সদ্য সমাপ্ত সংলাপ থেকে প্রাপ্ত সুপারিশ পর্যালোচনা করছে নির্বাচন কমিশন। এসব সুপারিশ থেকে বাছাই করে একটি কৌশলপত্র প্রস্তুত করার কাজ করছে ইসি। শিগগিরই তা চূড়ান্ত হবে। তারপর এ কৌশলপত্র নিয়ে বিশেষ সংলাপে বসবে সংস্থাটি। ইসি সূত্র জানিয়েছে, এবারের সংলাপে তিন ধরনের সুপারিশ এসেছে। এগুলোর মধ্যে কিছু সুপারিশ নির্বাচন কমিশন নিজেই বাস্তবায়ন করতে পারবে। আবার কিছু সুপারিশ আছে সরকারের সাথে সম্পৃক্ত এবং সংবিধান ও আইন সংশোধনের সাথেও সম্পৃক্ত। এগুলো প্রস্তাব আকারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে বলে ইসি সূত্রে জানা গেছে।

সূত্রমতে, রাজনৈতিক দলসহ বিভিন্ন মহলের কাছ থেকে পাওয়া প্রস্তাবগুলো নিয়ে ইসি পর্যালোচনা শুরু করছে।  এসব বিষয় বাছাই করে সেপ্টেম্বরের মধ্যেই খসড়াটি চূড়ান্ত করা হবে। এরপর দিনব্যাপী একটি বিশেষ সংলাপের আয়োজন করা হবে। সেখানে গণমাধ্যম, শিক্ষাবিদ, বিশেষজ্ঞ জন ও দলগুলোকে ডাকা হবে। এক্ষেত্রে ডাকা হবে প্রথম সংলাপে সাড়া না দেয়া বিএনপিকেও। সেখানে সবাই একমঞ্চেই থাকবে। এক্ষেত্রে প্রত্যেক গ্রুপ থেকে চার-পাঁচ জন করে অংশ নেবে। সংলাপে কৌশলপত্রটি উপস্থাপন করে অংশীজনের কাছ থেকে মতামত নেয়া হবে। এরপর সংসদ নির্বাচনের চূড়ান্ত কৌশলপত্র প্রণয়ন করবে নির্বাচন কমিশন।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার আলমগীর হোসেন জানান, সংলাপের প্রস্তাবগুলো পর্যালোচনা করছি। তিন ধরনের সুপারিশ করেছে। কিছু কিছু সুপারিশ আছে সংবিধান ও আইনের মধ্য থেকে করতে হবে। কিছু কিছু সুপারিশ আইনের পরিবর্তন নিয়ে। আর কিছু কিছু আছে ইসির এখতিয়ারের মধ্যে নয়। সেটা নিয়ে কিভাবে কী করবো, তা যখন আলাপ-আলোচনা করবো তখন সিদ্ধান্ত নেবো। তখন 

 

হয়তো আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাবগুলো পাঠিয়ে দেবো। তবে এখনো এ বিষয়ে ইসি কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি। গত ফেব্রুয়ারিতে দায়িত্ব নিয়ে কাজী হাবিবুল আউয়াল কমিশন বিভিন্ন মহলের সঙ্গে সংলাপের আয়োজন করে। এক্ষেত্রে গত ১৩ মার্চ দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও বুদ্ধিজীবী, ২২ মার্চ নাগরিক সমাজ, ৬ এপ্রিল প্রিন্ট মিডিয়ার সম্পাদক/সিনিয়র সাংবাদিক, ১৮ এপ্রিল ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রধান নির্বাহী/প্রধান বার্তা সম্পাদক/সিনিয়র সাংবাদিক, ৯ জুন নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থার প্রতিনিধি এবং ১২ জুন নির্বাচন বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে মতবিনিময় করে ইসি। এরপর গত ১৭ জুলাই থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের আয়োজন করে সংস্থাটি। এতে ২৮টি দল অংশ নিলেও বিএনপিসহ ৮ টি দল অংশ নেয়নি। দু’টি দল পরবর্তীতে সময় চেয়েছে।

এছাড়া প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে ইভিএম যাচাই করার জন্য গত ২৫ মে, এবং রাজনৈতিক দলগুলো সঙ্গে ১৯, ২১ ও ২৮ জুন তিন দফায় বৈঠক করে ইসি। সে সময়ও বিএনপিসহ ১১টি দল সাড়া দেয়নি। এদের সঙ্গে আলোচনায় পাওয়া প্রস্তাবগুলো নিয়েই এবার কৌশলপত্র প্রণয়ন করছে নির্বাচন আয়োজনকারী কর্তৃপক্ষটি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ