শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর ২০২২
Online Edition

ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে চলছে যশোরের অর্ধশত কলেজ

জেনেশুনে অবৈধ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে চলছে যশোরের অর্ধশত কলেজ। এসব অধ্যক্ষের সকল প্রকার কাজও অবৈধ। ফলে, অবসরে যাওয়ার পর তাদের করে যাওয়া কাজ নিয়ে কলেজে জটিলতা তৈরি হতে পারে। এমন অবস্থার পরও কেবলমাত্র ব্যক্তিস্বার্থে গভর্নিংবডির সভাপতিদের ভুল বুঝিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন মেয়াদোত্তীর্ণ অধ্যক্ষরা।

যশোর শিক্ষাবোর্ড থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, জেলায় ১১২ টি কলেজ রয়েছে। স্কুল অ্যান্ড কলেজ রয়েছে ১৫ টি। একাধিক কলেজ শিক্ষক জানিয়েছেন, জেলায় কমপক্ষে অর্ধশত কলেজ চলছে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় গত ২৯ জুন এক প্রজ্ঞাপনে জানিয়েছে, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বেসরকারি কলেজ/ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান/ ইনস্টিটিউটসমূহে এক বছর বা এর অধিক সময় ধরে যারা ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করছেন তাদের এ দায়িত্ব পালন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত বেসরকারি কলেজ শিক্ষকদের চাকরির শর্তাবলী রেগুলেশন (সংশোধিত) ২০১৯ এর পরিপন্থি হওয়ায় উক্ত দায়িত্ব পালনের কোনো সুযোগ নেই।’

বিধি অনুযায়ী, ‘কলেজে অধ্যক্ষ পদ শূন্য হলে অধ্যক্ষের অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে উপাধ্যক্ষ/ জ্যেষ্ঠতম পাঁচজন শিক্ষকের মধ্যে হতে যেকোনো একজনকে দায়িত্ব প্রদান করতে হবে এবং সেইসাথে পরবর্তী ছয় মাসের মধ্যে অধ্যক্ষ নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়া ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব প্রদানের এক বছরের মধ্যে নিয়মিত অধ্যক্ষ নিয়োগ করতে ব্যর্থ হলে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের স্বাক্ষরকৃত কাগজপত্র ও কার্যবিবরণী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক স্বীকৃত অথবা গৃহীত হবে না। এ অবস্থায় যেখানে অধ্যক্ষ নেই সেখানে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিয়োগ দিয়ে ছয় মাসের মধ্যে নিয়মিত অধ্যক্ষ নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে অবহিত করতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ পরিদর্শক ফাহিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এসব উল্লেখ করা হয়েছে। যার স্মারক নম্বর ০৭(১৫২৫)জাতীঃ বিঃ/কঃপঃ/বিবিধ/৫১৭৫১।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এই আদেশের প্রতি ব্রদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে যশোরের অর্ধশত কলেজে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দায়িত্ব পালন করছেন। এসব অধ্যক্ষ বছরের পর বছর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করলেও গভর্নিংবডি তেমন কিছু বলে না। অভিযোগ রয়েছে, কোনো কোনো কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষরা সভাপতিকে ‘ম্যানেজ’ করে টিকে আছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ