রবিবার ২৬ জুন ২০২২
Online Edition

তুরস্কের উদ্বেগের সমাধান করা হচ্ছে :  ন্যাটো 

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্কঃ  যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্যপদের জন্য ইতোমধ্যেই আনুষ্ঠানিকভাবে আবেদন করেছে রাশিয়ার দুই প্রতিবেশী দেশ সুইডেন-ফিনল্যান্ড। নিরাপত্তা নিয়ে ‘উদ্বেগ’ প্রকাশ করে বরাবরই দেশ দুটির ন্যাটো সদস্য পদের বিরোধিতা জানিয়ে আসছে তুরস্ক। এবার তুরস্কের ওই উদ্বেগের ব্যাপারে মুখ খুলেছে ন্যাটো। 

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গ বলেন, সামরিক জোটে সুইডেন এবং ফিনল্যান্ডের আবেদন নিয়ে তুরস্কের উত্থাপিত ‘উদ্বেগ’ সমাধান করা হচ্ছে।

ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে স্টলটেনবার্গ বলেন, অবশ্যই তুরস্ক যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আমরা তা সমাধান করে ‘কীভাবে এগিয়ে যেতে হবে সে বিষয়ে পথ খোঁজার জন্য’ আমরা কাজ করছি। 

এর আগে  ন্যাটো সদস্য তুরস্কের পক্ষে সামরিক জোটে যোগদানের জন্য সুইডেন এবং ফিনল্যান্ডের পরিকল্পনাকে ইতিবাচকভাবে দেখা সম্ভব নয় জানিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, আমাদের ইতিবাচক মতামত নেই। স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশগুলো সন্ত্রাসী সংগঠনের গেস্টহাউসের মতো।

এ সময় এরদোগান তুরস্কের আগের শাসক ১৯৫২ সালে গ্রিসকে ন্যাটো সদস্যপদের অনুমোদন দিয়ে ভুল করেছিলেন উল্লেখ করে বলেছিলেন, আমরা দ্বিতীয়বার একই ইস্যুতে ভুল করতে চাই না।

এরদোগান স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশগুলোর বিরুদ্ধে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি (পিকেকে) এবং চরম বামপন্থী রেভুলেশনারি পিপলস লিবারেশন পার্টি-ফ্রন্ট (ডিএইচকেপি-সি)  সদস্যদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ করেছিলেন।

এরদোগান সুইডেন ও ফিনল্যান্ডের বিরুদ্ধে ‘সন্ত্রাসীদের’ আশ্রয় দেওয়ার, অর্থায়ন করার এবং অস্ত্র সরবরাহ করার অভিযোগ তুলে বলেছিলেন, ন্যাটো একটি নিরাপত্তা জোট এবং এখানে সন্ত্রাসীদের প্রবেশ আমরা মেনে নিতে পারি না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ