রবিবার ২৬ জুন ২০২২
Online Edition

অবরুদ্ধ মারিউপোল থেকে বের করে আনা হল আহত সৈন্যদের

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: দুই মাসের বেশি সময় ধরে ইউক্রেনের মারিউপোলের ইস্পাত কারখানা আজভস্টালে অবরুদ্ধ থাকা দুই শতাধিক সৈন্যকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ইউক্রেন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। দেমটির উপপ্রতিরক্ষামন্ত্রী হানা মালিয়ার বলেছেন, তাদের মধ্যে ৫৩ জন মারাত্মকভাবে আহত সৈন্যদের নোভোয়াজোভস্ক শহরে নেওয়া হয়েছে। এই শহরটা রাশিয়াপন্থী সৈন্যদের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি’র প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

হানা মালিয়ার বলেছেন, আরও ২১১ জনকে মানবিক করিডোর ব্যবহার করে ওলেনিভকা শহরে পাঠানো হয়েছে, যেটাও বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত এলাকা।

এর আগে রাশিয়া বলেছিল, আহত এই সৈন্যদের উদ্ধারের জন্য তারা একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, দক্ষিণাঞ্চলীয় এই বন্দর শহরটির একটি অবরুদ্ধ শিল্প কারখানা এলাকা থেকে সোমবার রাতে বেশ কয়েকটি বাসে করে সৈন্যদের বের করে আনা হয় ।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে দেখানো হচ্ছে, আজভস্টাল থেকে আহত ইউক্রেনীয় সৈন্যদের উদ্ধার করা হচ্ছে।

মালিয়ার বলেছেন, রাশিয়ার যেসব সৈন্যদের বন্দী করা হয়েছে তাদের সঙ্গে এই সৈন্যদের বিনিময় করা হবে।

অর্থাৎ ইউক্রেন এই আহত সৈন্যদের ফিরে পাবে যখন তারা তাদের কাছে আটক রাশিয়ার সৈন্যদের ছেড়ে দেবে।

এদিকে, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোররাতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলনস্কি তার এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, ইউক্রেনের সৈন্য, গোয়েন্দা বাহিনী, মধ্যস্থতাকারী এবং তাদের সঙ্গে রেড ক্রস ও জাতিসংঘ এই উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করেছে।

তিনি বলেন “ইউক্রেনের এই সব নায়কদের জীবিত অবস্থায় প্রয়োজন।”

অবশ্য তিনি সতর্ক করে দেন যে, এই সৈন্যরা এখনই হয়তো মুক্তি পাচ্ছে না, তাদের মুক্ত করার আলোচনার জন্য ‘সময়’ লাগবে।

রুশ সৈন্যরা মারিউপোলের দিকে অগ্রসর হওয়ার পর ইউক্রেনের শত শত সৈন্য গত মার্চ থেকে এই স্থানটিতে অবরুদ্ধ হয়ে আছে- যাদের মধ্যে রয়েছে আজভ রেজিমেন্ট, ন্যাশনাল গার্ড, পুলিশ, আঞ্চলিক প্রতিরক্ষা ইউনিটের সদস্য এবং বহু বেসামরিক বাসিন্দা।

এটা এখনও পরিষ্কার নয় যে কতজন মানুষ ভূগর্ভস্থ বাঙ্কারে রয়ে গেছে।

মালিয়ার বলেছেন, ইউক্রেনের সেনাবাহিনী, গোয়েন্দাবাহিনী, ন্যাশনাল গার্ড এবং বর্ডার গার্ড ‘যৌথভাবে এই উদ্ধার অভিযান করেছে তাদেরকে বাঁচাতে যারা সেখানে আটকে ছিল।’

ওই ইস্পাত কারখানাটিতে যারা প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন, তাদের প্রশংসা করেন তিনি। তিনি বলেন, “তারা তাদের উপর অর্পিত নির্দেশ ও দায়িত্ব পুরোপুরি পালন করেছে।”

সোমবার রাতে ফেসবুকে পোস্ট করা এক বার্তা ইউক্রেনের জেনারেল স্টাফ এই সৈন্যদেরকে ‘এই সময়ের বীর’ বলে অভিহিত করেন। সূত্র: বিবিসি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ