রবিবার ২৬ জুন ২০২২
Online Edition

খুলনায় ৯৪ শতাংশ বোরো  ধান কাটা শেষ

খুলনা ব্যুরো : খুলনায় বোরো ধান কাটা প্রায় শেষের পথে। এখন চলছে কাটা ধান শুকিয়ে গোলায় তোলা। ফলে কৃষকরা বেজায় ব্যস্ত। ঘূর্ণিঝড় অশনির চোখ রাঙানিতে অতিষ্ঠ কৃষক শেষ পর্যন্ত ধান কাটতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করছেন। পাকা বোরো ধান কাটা ও মাড়াইয়ের মহোৎসব চলছে খুলনার গ্রামে গ্রামে। আবার অনেকে ধান কেটে মাঠে রেখে বৃষ্টির কারণে বাড়িতে আনতে না পেরে হতাশায় ভুগছেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ৬২ হাজার ৭৩০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ হয়েছিল। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ধান উৎপাদন কিছুটা কম হয়েছে। ৯৪ শতাংশ ধান কাটা শেষ হয়েছে। ডুমুরিয়ার গোলনা গ্রামের কৃষক ইমরান খান বলেন, ধানের ফলন খুব ভালো হয়েছে। প্রায় সবই কেটেছি। বৃষ্টির কারণে কিছু জমির ধান কাটা বাদ রয়েছে। এবার ধানের দাম ভালো রয়েছে। ডুমুরিয়ার চক আহসানখালী বিলের মো. ইয়াসিন নামে এক কৃষক বলেন, বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ৪০ বিঘা জমির ধান কেটে মাঠেই রাখা হয়েছে। বৃষ্টির কারণে কিছু জমির ধান বাড়ি আনতে পারিনি। এখন আনা হবে। রূপসার আঠারোবাকী মডেল বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক শাখাওয়াত হোসেন বিপ্লব বলেন, এখন ধান কাটার সময়। ঘূর্ণিঝড় অশনির কারণে কৃষকের মধ্যে চাপা আতঙ্ক বিরাজ করছিল। তার মধ্যেও কৃষাণ-কৃষাণী চেষ্টা করছেন তাদের কষ্টের ধান নিরাপদে তুলে নিতে। তাই তারা এখন খুবই ব্যস্ত। মাঠে মাঠে এখনও সোনার ফসল ভরে রয়েছে। যারা অশনির প্রভাবে বৃষ্টির কারণে কাটতে পারেননি তারা চেষ্টা করছেন দ্রুত ধান কাটতে। ধান কাটা ও মাড়াইয়ের এক মহোৎসব চলছে গ্রামগুলোতে। 

খুলনা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. হাফিজুর রহমান বলেন, খুলনায় ৯৪ শতাংশ বোরো ধান কাটা শেষ হয়েছে। ৬২ হাজার ৭৩০ হেক্টর জমিতে এবার ধান চাষ করা হয়েছিল। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ধান উৎপাদন কিছুটা কম হয়েছে। গতবার ৬০ হাজার ১২৫ হেক্টর জমিতে যে পরিমাণ ধান হয়েছিল সে হিসেবে এবার ধানের উৎপাদন কম। খরার কারণে উৎপাদন কম হয়েছে। বৃষ্টির জন্য বাকি ধান কাটতে দেরি হচ্ছে কৃষকের।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ