ঢাকা, শনিবার 04 February 2023, ২১ মাঘ ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪ হিজরী
Online Edition

অস্কার ছাপিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে উইল স্মিথের থাপ্পড়!

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: অস্কারের ৯৪তম আসর যে ঘটনা ঘটেছে তা হয়তো কখনো ভুলতে পারবেন না চলচ্চিত্রপ্রেমীরা। এমনকি অস্কারের মঞ্চে এমন ঘটনা হয়তো দ্বিতীয়বার নাও ঘটতে পারে! আসলে কী ঘটেছিল রোববার রাতে? সংক্ষেপে বলতে গেলে মার্কিন কমেডিয়ান ক্রিস রক উইল স্মিথের স্ত্রী জাডা পিংকেট স্মিথ নিয়ে ঠাট্টা করেন। পরে মঞ্চে উঠে ক্রিস রককে থাপ্পড় মারেন উইল স্মিথ। এটি গতকাল থেকে বিশ্বের সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা। অস্কারের চেয়ে থাপ্পড় চলে এসেছে আলোচনার কেন্দ্রে।

অবশ্য সেই রাতে সেরা অভিনেতার পুরস্কার ঠিকই জিতেছেন উইল স্মিথ। তবে, তিনি খবরের শিরোনাম হয়েছেন থাপ্পড়ের কারণে। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ফলাও করে ছাপা হয়েছে সেই খবর। প্রায় সবার শিরোনাম এমন 'অস্কারের মঞ্চে উঠে ক্রিস রককে থাপ্পড় মেরেছেন উইল স্মিথ'।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মুহূর্তে ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। পক্ষে-বিপক্ষে মতামত দিচ্ছেন সবাই। অর্থাৎ, অস্কারের এই ঘটনা পুরো বিশ্বের বিনোদন প্রেমীদের দুটি দলে ভাগ করে দিয়েছে।

পক্ষ-বিপক্ষ

কারো দাবি উইল স্মিথ ঠিক করেছেন। আবার কেউ বলছেন, উইল স্মিথ একদমই ঠিক করেননি। পক্ষ ও বিপক্ষের দাবি পর্যালোচনা করলে দুটি যুক্তি সামনে আসবে।

প্রথমত যারা পক্ষে বলছেন তাদের যুক্তি এমন, ক্রিস রক যা করেছেন তা মোটেও ঠিক হয়নি। কৌতুক করার জন্য অনেক বিষয় আছে। কিন্তু, কারো রোগ নিয়ে কৌতুক করাটা কখনোই উচিত নয়।

দ্বিতীয়ত যারা স্মিথের বিপক্ষে বলছেন তাদের যুক্তি এমন, উইল স্মিথ একজন মেধাবী অভিনেতা। সুতরাং, মানসিকভাবে তার আরও শক্ত হওয়া উচিত ছিল। তিনি এভাবে থাপ্পড় না মেরে অন্যভাবেও প্রতিবাদ জানাতে পারতেন। সেটা মঞ্চে উঠে কোনো বক্তব্য দিয়ে অথবা কোনো লিখিত অভিযোগ করতে পারতেন। কিন্তু, তিনি তা না করে থাপ্পড় মেরে বসলেন। যা কেউ ভাবতেও পারেনি।

পক্ষে বা বিপক্ষে যে যাই বলুক আসুন জেনে নিই অস্কার একাডেমি কী বলেছে।

অস্কার একাডেমির বক্তব্য

ওই ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর অস্কার একাডেমি একটি টুইট করে। একাডেমি বলছে, 'একাডেমি কোনো ধরনের সহিংসতাকে সমর্থন করে না। আজ রাতে আমরা আমাদের ৯৪তম একাডেমি পুরষ্কার বিজয়ীদের সঙ্গে অনুষ্ঠান উদযাপন করতে পেরে আনন্দিত। বিশ্বজুড়ে সহকর্মী এবং চলচ্চিত্র প্রেমীদের কাছ থেকে এই স্বীকৃতি তাদের প্রাপ্য।'

হলিউডের প্রতিক্রিয়া

হলিউড অভিনেতা, প্রযোজক এবং একাডেমির প্রতিনিধিরা এ ঘটনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

ভ্যারাইটির এক্সিকিউটিভ এডিটর রামিন সেতুদেহ টুইট করেন, অস্কারের জন্য যিনি কাজ করেন তিনি আমাকে বলেছেন, ক্রিস রককে গতকাল রিহার্সালে উইল স্মিথ বাধা দেননি। তাই এমনটা হওয়ার কথা ছিল না।

অভিনেত্রী মিয়া ফ্যারো ফ্যারো এই ঘটনাকে 'অস্কারের সবচেয়ে কুৎসিত মুহূর্ত' হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, এটি কেবল রসিকতা ছিল। ক্রিস রক যা করেন তা হলো কৌতুক। এটা ছিল তার জন্য একটি ছোট কৌতুক এবং আমি জিআই জেনকে ভালোবাসি।

কৌতুকাভিনেতা ও পরিচালক জুড অ্যাপাটো টুইট করেন, উইলিয়ামস পরিবারকে অবশ্যই ক্ষুব্ধ হতে হবে। এটি নিয়ন্ত্রণের বাইরে ক্রোধ এবং সহিংসতা। গত ৩ দশকে তারা লাখ লাখ রসিকতা শুনেছে। হলিউড ও কমেডি জগতে তারা নতুন নন। তিনি তার মেজাজ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি।

পরিচালক রব রেইনার লিখেছেন, উইল স্মিথ ক্রিস রকের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন। কিন্তু, তিনি যা করেছেন তার জন্য কোনো অজুহাত থাকতে পারে না। তিনি ভাগ্যবান যে ক্রিস হামলার অভিযোগ দায়ের করছেন না। তিনি পরিবারের সম্মান রক্ষার যে অজুহাত দেখিয়েছেন তা বাজে কথা।

অভিনেত্রী ও পরিচালক সোফিয়া বুশ লিখেছেন, সহিংসতা ঠিক নয়। আক্রমণ কখনোই সমাধান হতে পারে না।

তবে তিনি রকের কৌতুকের সমালোচনা করে বলেন, এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো ক্রিস অস্কারের মঞ্চে জাডাকে নিয়ে মজা করেছেন। আজ রাতে তিনি অ্যালোপেসিয়ার প্রসঙ্গ টেনেছেন। কারো রোগ নিয়ে মজা করা ভুল। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এটা করা নিষ্ঠুর।

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিয়ে কৌতুক করে মৃত্যুর হুমকি পাওয়া কৌতুকাভিনেতা ক্যাথি গ্রিফিন পরামর্শ দেন, স্মিথের উদ্যোগগুলো অন্যান্য কৌতুক অভিনেতাদের ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। কৌতুক করে কাউকে শারীরিকভাবে আক্রমণ করা খুব খারাপ প্র্যাকটিস।

সাংবাদিক মারিয়া শ্রিভার লিখেছেন, উইল স্মিথ বলেছেন যে তিনি ভালোবাসার পাত্র হতে চান। কিন্তু, ভালোবাসা হিংস্র নয়। আজ রাতে একটি বৈশ্বিক মঞ্চে যা হয়েছে তা ভালোবাসা নয়। আমাদের কখনোই এমন কোথাও যাওয়া উচিত নয় যেখানে একজন চলচ্চিত্র তারকা অন্য কাউকে আঘাত করবেন। আবার তা বিশ্বব্যাপী টেলিভিশনে দেখানো হবে।

একাডেমির সাবেক সভাপতি সিড গ্যানিস সরাসরি সমালোচনাকে এড়িয়ে স্মিথের বক্তব্যের প্রশংসা করে বলেন, আমি মনে করি, এই দুজন মানুষের মধ্যে সত্যিকারের মতানৈক্য ছিল এবং এটি তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার।

ক্রিস রক কী অভিযোগ করবেন?

এ ঘটনার পর অনেকেই ভেবেছিলেন ক্রিস রক হয়তো উইল স্মিথের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করবেন। কিন্তু, বিনোদন বিষয়ক অনলাইন পোর্টাল ইঅনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্রিস রক কোনো অভিযোগ দায়ের করবেন না।

সংবাদমাধ্যমটি বলছে, লস এঞ্জেলেসের পুলিশ ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে বলা হয়, একাডেমি পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান চলাকালে দুই ব্যক্তির মধ্যে ঘটে যাওয়া ঘটনার বিষয়ে তাদের অনুসন্ধানী দল অবগত আছে। এ ঘটনায় একজন ব্যক্তি আরেকজনকে থাপ্পড় মারার সঙ্গে জড়িত ছিল। তবে, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি পুলিশের কাছে অভিযোগ দাখিল করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। যদি পরবর্তী সময়ে একটি পুলিশ রিপোর্ট চাওয়া হয়, তবে এলএপিডি একটি তদন্ত প্রতিবেদন তৈরি করতে কাজ করবে।

এ বিষয়ে ইঅনলাইন ক্রিস রক এবং স্মিথের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তাদের কোনো মন্তব্য জানতে পারেনি।

পুরস্কার হাতে যা বলেছেন উইল স্মিথ

ভেনাস উইলিয়ামস এবং সেরেনা উইলিয়ামসের বাবা রিচার্ড উইলিয়ামসের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতার অস্কার পুরষ্কার পাওয়ার পর অশ্রুসিক্ত উইল স্মিথ একাডেমি এবং তার সহকর্মীদের কাছে ক্ষমা চান।

তিনি বলেন, এটি একটি সুন্দর মুহূর্ত এবং আমি পুরস্কার জেতার জন্য কাঁদছি না। এটি আমার জন্য পুরষ্কার জয়ের বিষয় নয়।

উইল স্মিথ এবং জাডা পিংকেট স্মিথ ১৯৯৭ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন। ২০১৮ সালে জাডা তার অ্যালোপেসিয়া রোগের বিষয়ে কথা বলেন। এরপর থেকে উইল স্ত্রীর শারীরিক অবস্থা এবং চুল পড়া নিয়ে সোচ্চার ছিলেন। এই দম্পতির তিন সন্তান আছে।

যা হোক অস্কারের মঞ্চে উইল স্মিথ যে ঘটনা ঘটিয়েছেন তা হয়তো সহজেই ভুলতে পারবেন না বিনোদনপ্রেমীরা। এই ঘটনা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলতে থাকবে বহুদিন।

সূত্র: ডেইলি স্টার

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ