শুক্রবার ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Online Edition

গ্রাম-বাংলার হারিয়ে যাওয়া লোকজ খেলাধুলা মাঠে ফিরলো

মোহাম্মদ নুরুজ্জামান, রংপুর অফিস: রংপুরের গ্রাম-বাংলার হারিয়ে যাওয়া লোকজ খেলাধুলা মাঠে ফিরিয়ে নেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ কান্ট্রি গেমস এসোসিয়েশন। বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী ও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে গতকাল বুধবার দিনভর রংপুর পাবলিক লাইব্রেরী মাঠে হা-ডু-ডু, মোরগ লড়াই, বৌ-ছি, দড়ি লম্ফ প্রতিযোগিতায় মেতে ছিল অংশগ্রহণকারী শত শত ক্রীড়ানুরাগীসহ সাধারণ মানুষ। এ প্রতিযোগিতায় রংপুর নগরীর প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিশু নিকেতন উচ্চ বিদ্যালয়, কেরামতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, উত্তম স্কুল এন্ড কলেজ, লালকুঠি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজ, বুড়িরহাট উচ্চ বিদ্যালয় ও ধাপ সাতগাড়া বায়তুল মোকাররম কামিল মাদরাসার শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। 

সকালে বেলুন উড়িয়ে এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান। কান্ট্রি গেমস এসোসিয়েশন রংপুর জেলা কমিটির আহ্বায়ক মেরিনা লাভলী’র সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা ও বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক, বিসিবি পরিচালক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, রংপুর প্রেসক্লাব সভাপতি মাহবুব রহমান, কান্ট্রি গেমস এসোসিয়েশন রংপুর জেলা কমিটির সদস্য সচিব আশরাফুল আলম আল-আমিন। লোকজ ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় হা-ডু-ডু খেলায় ২৯ পয়েন্ট পেয়ে কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজ দল চ্যাম্পিয়ন ও ১৬ পয়েন্ট পেয়ে উত্তম স্কুল এন্ড কলেজ রানারআপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। বৌ-চি খেলায় ১৭ পয়েন্ট পেয়ে উত্তম স্কুল এন্ড কলেজ চ্যাম্পিয়ন ও ১৬ পয়েন্ট পেয়ে লালকুঠি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় রানারআপ হয়। এছাড়া মোরগ লড়াই খেলায় কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী রিফাত ইসলাম প্রথম, মাহফুজ হাসান দ্বিতীয় এবং উত্তম স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্র্থী মোহাম্মদ সাগর তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। দড়িলম্ফ প্রতিযোগিতায় কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী রাহিমা নবান্ন প্রথম, সমাজকল্যান বিদ্যাবিথী স্কুল ও কলেজের বেলি আক্তার দ্বিতীয় এবং কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী কবিতা চৌধুরী তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। প্রতিযোগিতা শেষে বিকেলে সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা। শেষে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে সনদপত্র, মেডেল ও ট্রফি তুলে দেয়া হয়।  রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা বলেন, আমরা ছোটবেলা হা-ডু-ডু, বৌ-চি, মোরগ লড়াই, দড়ি লম্ফ খেলাগুলো খেলতাম। বর্তমানে আমাদের শেকড়ের এ খেলাগুলো হারিয়ে গেছে। সেগুলো পুনরুজ্জীবিত করতে বাংলাদেশ কান্ট্রি গেমস কাজ শুরু করেছে। এজন্য সংগঠনের সকলের প্রতি আমার ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো। আগামীতে এ খেলাগুলো ছড়িয়ে দিতে কান্ট্রি গেমস এসোসিয়েশনের পাশে থাকবে রংপুর সিটি কর্পোরেশন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ