সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩
Online Edition

তিয়েনয়ানমেন হত্যাযজ্ঞের  ভাস্কর্য সরালো হংকং  

২৩ ডিসেম্বর, ইন্টারনেট : বেইজিংয়ের তিয়েনয়ান স্কয়ারে হত্যাযজ্ঞ নিয়ে হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থাপিত একটি বিখ্যাত ভাস্কর্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে। হংকংয়ের রাজনৈতিক ভিন্ন মতাবলম্বীদের ওপর চীন যখন ক্রমেই দমন পীড়ন বাড়াচ্ছে তখনই এই ভাস্কর্য সরালো হলো।

১৯৮৯ সালে চীনা কর্তৃপক্ষের গুলীতে নিহত গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের স্মরণে মৃতদেহ স্তূপ করে করে রাখার ভাস্কর্যটি বানানো হয়। চীনের কাছে অত্যন্ত স্পর্শকাতর ইস্যু এটি।  এই হত্যাযজ্ঞ স্মরণে হংকংয়ে যে কয়েকটি প্রকাশ্য স্মরণিকা রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম ছিলো ‘পিলার অব শেম’ নামের ভাস্কর্যটি।

গত অক্টোবরে হংকং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ভাস্কর্যটি সরিয়ে ফেলার ঘোষণা দেয়। বৃহস্পতিবার তারা এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘বয়স্ক ভাস্কর্যটি সরানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বাইরের আইনি পরামর্শ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ ঝুঁকি বিবেচনার ভিত্তিতে।’ ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘ভঙ্গুর ভাস্কর্যটির কারণে সম্ভাব্য নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।’ বুধবার রাতে ভাস্কর্যটি সরিয়ে ফেলার প্রথম ইঙ্গিত পাওয়া যায়। ওই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তারা প্লাস্টিক দিয়ে এলাকাটি ঘিরে ফেলেন। আট মিটার উঁচু তামার ভাস্কর্যটি সরাতে রাতভর বেড়া ভেতরে কাজ চালিয়ে যায় নির্মাণ কর্মীরা। নিরাপত্তা রক্ষীরা সাংবাদিকদের কাছে যেতে এবং ভিডিও ধারণ করতে বাধা দেয়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন বিবিসির প্রতিবেদক গ্রেস তসোই।  তিনি জানিয়েছেন, ভাঙা এবং ড্রিলের শব্দ শোনা গেলেও কী ঘটেছে তা কেউ দেখতে পায়নি। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২৪ বছর প্রদর্শিত হওয়ার পর এখন ভাস্কর্যটি গুদামে রাখা হবে।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ