শুক্রবার ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Online Edition

এইচএসসি পরীক্ষার্থী পা হারালো ট্রাক্টরের চাপায়

রংপুর অফিস: পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রংপুরে এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার উদ্দেশ্যে ট্রাক্টরের চাপা দিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে  গেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। ওই পরীক্ষার্থীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকরা তার বাম পাটি কেটে ফেলেন। বর্তমানে তার ডানপাটিও কেটে ফেলার উপক্রম হয়েছে বলে চিকিৎসকরা জানান। এ অবস্থায় ওই পরীক্ষার্থী  পরীক্ষা না দিতে পেরে পঙ্গুত্ব বরণ করলেও থানা  পুলিশ মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ করেছে পরীক্ষার্থীর মা সহ পরিবারের সদস্যরা। গত বুধবার দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তার মা মানিকা বেগম বাবা আনোয়ার হোসেনসহ পরিবারের সদস্যরা এই অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, রংপুর আনন্দলোক ডিগ্রী কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মিল্লাত মিয়া গত ২৯ নভেম্বর বিকেলে গংগাচড়া উপজেলার  কোলকোন্দ ইউনিয়নের দক্ষিণ কোলকোন্দ এলাকার চেংডোবা গ্রামে জমিতে কাজ করার সময় পতিপক্ষ সাহেব আলী, লাভলু মিয়া কৌশলে মিল্লাত হোসেনকে ডেকে নিয়ে ট্রাক্টরে উঠতে বলে। এসময় মিল্লাত ট্রাক্টরে উঠার চেষ্টা করলে চালক পরিকল্পত ভাবে তাকে চাপা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এসময় মিল্লাতের দুই পায়ের উপর দিয়ে ট্রাক্টরটি চলে গেলে সে গুরুতর জখম হয়। এসময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। হাসপাতালে ভর্তির পর চিকিৎসকরা মিল্লাতের বাম পাটি হাঁটুর নীচ থেকে কেটে ফেলে। তার ডান পা কেটে ফেলতে হবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন । এ ঘটনার পর এ বিষয়ে গংগাচড়া মডেল থানায় মামলা করার জন্য গেলে পুলিশ তার মামলাটি রেকর্ড করেননি বলে জানান। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ