সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

দু’একদিনের মধ্যেই কুমিল্লার খুনের রহস্য উদ্ঘাটন -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মো. সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহাকে গত সোমবার বিকেলে গুলী করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করে ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, গত পরশু দিন একটা হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। আমাদের পুলিশ বাহিনী চেষ্টা করছে। আশা করছি, আমরা আজকে বা কালকে সমস্ত রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারব।’
গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনে (বিটিআরসি) এক সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বিটিআরসির ‘এনওসি অটোমেশন এবং আইএমইআই ডেটাবেইস’ সিস্টেমের সঙ্গে এনটিএমসির ‘ইন্টিগ্রেটেড ল’ফুল ইন্টারসেপশন সিস্টেম’-এর ইন্টিগ্রেশন বিষয়ক এ সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। চুক্তিতে সই করেন বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের রেডিও কমিউনিকেশন স্টাডি অ্যান্ড রিসার্চ ডিরেক্টরের পরিচালক মো. সোহেল রানা এবং বিটিএমসির অতিরিক্ত পরিচালক মো. শাওগাতুল আলম।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের সামনে সব অপরাধের ধরন পাল্টে যাচ্ছে ও যাবে। তখন সাইবার অপরাধ যে পরিমাণ আসবে, তা আমরা চিন্তাও করতে পারছি না। সে অনুযায়ী আমরা পুলিশ বাহিনীকে তৈরি করছি। এনটিএমসিকেও আমরা সেভাবে তৈরি করছি। এ সমঝোতা স্মারক সইয়ের মাধ্যমে এনটিএমসি আরও শক্তিশালী হবে। দুর্গাপূজায় কুমিল্লার একটি মন্দিরে পবিত্র কুরআন রেখে আসা যুবকের বিষয়ে আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আপনারা দেখেছেন, গভীর রাতে কুমিল্লায় একটি ছেলে কীভাবে কোরআন শরিফ নিয়ে কী ধরনের কাণ্ড ঘটিয়েছিল। তার উদ্দেশ্য কী ছিল, সেটাও আমরা বের করে নিয়ে এসেছি। সেটা শনাক্ত করা সম্ভব হতো না, যদি আমরা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার না করতাম।’
অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আগামী ১২ ডিসেম্বর আমরা ৫-জি প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ করব। প্রচলিত যে অবস্থা আছে বা সমাজ, সংস্কৃতি, অর্থনীতি অথবা যে জগতে বসবাস করি, তাতে এমন পরিবর্তন আনবে, যা হয়তো আমরা ধারণাও করতে পারছি না।’ ডিজিটাল অপরাধগুলোর বড় একটা অংশ সংঘটিত হয় ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারকারীদের মধ্যে সচেতনতা না থাকার কারণে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
বিটিআরসি আয়োজিত অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. খলিলুর রহমান, এনটিএমসির পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান, বিটিআরসির স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শহীদুল আলম, বিটিআরসির কমিশনার প্রকৌশলী এ কে এম শহীদুজ্জামান।
কুমিল্লা সিটি কাউন্সিলর হত্যার ঘটনায় ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা আটক ১
কুমিল্লা  অফিস : কুমিল্লায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও ১৭ নং ওয়ার্ড  কাউন্সিলর সৈয়দ মো সোহেল ও তার সহযোগিকে গুলি করে হত্যা ঘটনায় ১১ জনের নাম উল্লেখ করে  অজ্ঞাত পরিচয় ১০-১২জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এই ঘটনায় সুমন (৩২) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।
গতকাল বুধবার ১০টার দিকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকে গ্রেফতার করা হয়।  সুমন মামলার এজাহারভুক্ত চার নম্বর আসামি। নগরীর সুজানগর পূর্ব পাড়া বৌবাজার এলাকার মৃত কানু মিয়ার ছেলে সে।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল কৃষ্ণ ধর। তিনি বলেন, রাত সোয়া ১২টার দিকে কাউন্সিলর সোহেলের ছোটভাই সৈয়দ মো রুমন বাদি হয়ে মামলাটি করেন। মামলায় ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের শাহ আলমকে প্রধান আসামি করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া অজ্ঞাত পরিচয় আসামি করা হয়েছে ১০-১২ জনকে।
র‌্যাব-১১ কুমিল্লা সিপিসি-২ এর অধিনায়ক মেজর সাকিব হোসেন জানান, গতকাল মঙ্গলবার রাতে কাউন্সিলর সোহেল ও হরিপদ সাহাকে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়। সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে চিকিৎসাধীন সুমনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে তাকে পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জনায়, সোমবার (২২ নভেম্বর) বিকেল ৪টার দিকে ১৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সোহেল পাথুরীয়াপাড়ায় তার কার্যালয়ে বসে কথা বলছিলেন। এ সময় মুখোশ পরা একদল সন্ত্রাসী তার অফিসে ঢুকে তাকে গুলী করে। এতে কাউন্সিলর সোহেল মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। গুলিবিদ্ধ হন হরিপদ সাহা, আওলাদ হোসেন রাজু, মো. জুয়েল ও মো. রাসেল। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা গুলী ও ককটেল বিস্ফোরণ করতে করতে মোটরসাইকেলযোগে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ