শুক্রবার ২০ মে ২০২২
Online Edition

সুদানে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে গুলীতে ঝরল ৭ প্রাণ

২৬ অক্টোবর, বিবিসি, রয়টার্স : সুদানে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে সেনাদের গুলীতে অন্তত সাত বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও প্রায় ১৪০ জন। সামরিক অভ্যুত্থানের পর সেনাশাসনের বিরোধিতায় রাজপথে নামা বহু মানুষকে ছত্রভঙ্গ করতে গুলী চালানো হলে হতাহত হওয়ার এ ঘটনা ঘটে।
খবরে বলা হয় গত সোমবার দেশটির সশস্ত্র বাহিনী রাজনৈতিক নেতাদের গ্রেপ্তারের পর দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছে। এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন বহু মানুষ। সুদানের রাজধানী খার্তুমে সেনাসদস্যরা ঘরে ঘরে গিয়ে স্থানীয় বিক্ষোভের আয়োজকদের গ্রেপ্তার করছেন। টায়ার পুড়িয়ে ও ইটের স্তূপ বানিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা। এদিকে আগামী বছরের জুলাইয়ে দেশটিতে নির্বাচন করতে চায় অভ্যুত্থানের নেতা জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ বুরহান। সুদানে সেনা অভ্যুত্থানের নিন্দা জানিয়েছে বিশ্বের অনেক দেশ ও সংস্থা। ইতিমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ৭০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সহায়তা স্থগিত করেছে। আবদেল ফাত্তাহ বুরহান সামরিক পদক্ষেপের জন্য রাজনৈতিক অন্তর্দ্বন্দ্বকে দায়ী করেছেন। দুই বছর আগে দীর্ঘদিনের শাসক ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর ক্ষমতা ভাগাভাগি করে দেশ শাসন করছিল সামরিক বাহিনী ও বেসামরিক সরকার। কিন্তু এর পর থেকে বেসামরিক নেতা এবং তাদের সামরিক প্রতিপক্ষের মধ্যে নানা বিষয়ে বিরোধ দেখা দেয়। এর মধ্যে অভ্যুত্থানের ঘটনা ঘটল।
রাত নামার সঙ্গে সঙ্গে রাজধানী খার্তুমসহ ও অন্যান্য শহরে বিপুলসংখ্যক বিক্ষোভকারী রাজপথে নেমে আসেন। বেসামরিক শাসন ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান তাঁরা। আহত একজন বিক্ষোভকারী সাংবাদিকদের বলেন, সামরিক সদর দপ্তরের বাইরে তাঁর পায়ে গুলী করেন সেনারা। সেনাসদস্যরা প্রথমে স্টান গ্রেনেড এবং তারপর সরাসরি গুলী চালান।
আল-তায়েব মোহাম্মদ আহমেদ নামের একজন বলেন, ‘আমার চোখের সামনে দুজন লোকের মৃত্যু হলো।’ সুদানের চিকিৎসক ইউনিয়ন ও তথ্য মন্ত্রণালয় তাদের ফেসবুক পেজে সামরিক সদর দপ্তরের বাইরে প্রাণঘাতী গুলীর কথা জানিয়েছে। শহরের এক হাসপাতালের ছবিতে রক্তাক্ত পোশাক ও একাধিক আঘাতের চিহ্ন নিয়ে অনেককে দেখা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ