রবিবার ১৭ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

অবমাননাকারীদের দ্রুত বিচার না করলে সারাদেশে আন্দোলনের দাবানল ছড়িয়ে পড়বে

স্টাফ রিপোর্টার : কুমিল্লায় পূজা মন্ডপে কুরআন অবমাননার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিভিন্ন সংগঠন। গতকাল বুধবার হেফাজতে ইসলামসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানান, অন্যথায় সারাদেশে আন্দোলনের দাবানল ছড়িয়ে পড়বে বলে তারা হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন।
হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ : কুমিল্লায় হিন্দুদের পূজা মণ্ডপে পবিত্র কুরআন অবমাননার প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ-এর আমীর আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম। এক বিবৃতিতে হেফাজত নেতারা বলেন, কুমিল্লার নানুয়া দীঘির পাড়ের পূজা মণ্ডপে পবিত্র কুরআনকে যেভাবে অবমাননা করা হয়েছে, তা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। যারা বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে চায়, তাদের বিরুদ্ধে অতিসত্বর কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে। তারা বলেন, দেশের ইসলামপ্রিয় জনতাকে দুর্বল মনে করবেন না। এদেশের তৌহিদী জনতা নিজেদের ঈমান-আকিদা রক্ষা করতে জানে। এভাবে কুরআনকে অবমাননা করা হবে আর দেশের ইসলাম প্রিয় জনতা বসে থাকবে, এ হতে পারে না। আমরা প্রশাসনকে সতর্ক করে বলে দিতে চাই, আপনারা এসব ষড়যন্ত্রকে থামান, দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। না হয় পরিস্থিতি অশান্ত হলে এর দায়ভার সরকারকেই নিতে হবে। এই ঘটনার প্রতিবাদ শুধু কুমিল্লায় নয়, সারা দেশে ছড়িয়ে পড়বে। তখন থামাতে চেষ্টা করলেও থামানো যাবে না। যে পূজা মণ্ডপে এই ঘটনা ঘটেছে, সে মণ্ডপ অবিলম্বে বন্ধ করুন। যারা এই ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত, তাদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে খুঁজে বের করে গ্রেপ্তার করুন। দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষা করুন।
খেলাফত আন্দোলন : বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন প্রধান, আমীরে শরীয়ত মাওলানা আতাউল্লাহ হাফেজ্জী ও মহাসচিব মাওলানা হাবিবুল্লাহ মিয়াজী এক যুক্ত বিবৃতিতে কুমিল্লায় পূজা মন্ডবে কুরআন অবমাননার তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাঁরা বলেন, কতিপয় উগ্র হিন্দু সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধানোর লক্ষ্যে পরিকল্পিতভাবে মুসলমানদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কুরআনের অবমাননা করেছে। যা মুসলমানদের হৃদয়ে চরমভাবে আঘাত হেনেছে। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে। অন্যথায় সারাদেশে আন্দোলনের দাবানল ছড়িয়ে পড়বে। নেতৃদ্বয় আরো বলেন, মুসলমানগণ শান্তিপ্রিয় জাতি। তারা নিজ ধর্ম ইসলাম, আল্লাহ-রাসুল ও কুরআন- হাদিসকে তাদের জীবনের চেয়েও বেশি ভালোবাসেন। তাই পবিত্র কুরআনের অবমাননা তারা বরদাশত করতে পারে না। জীবনের বিনিময়ে হলেও তারা তাদের পবিত্র ধর্মের মর্যাদা রক্ষা করতে চেষ্টা করে। কুমিল্লায় পবিত্র কুরআন অবমাননাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক বিচার করতে ব্যর্থ হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে।
খেলাফত মজলিস : কুমিল্লা নানুয়ার দিঘিরপাড়ে একটি পূজামন্ডপে পবিত্র কুরআন শরীফ অবমাননার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে পবিত্র কুরআন অবমাননার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছে খেলাফত মজলিস।
গতকাল দেয়া এক যৌথ বিবৃতিতে খেলাফত মজলিসের আমীর অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক ও ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন বলেন, তাওহিদী জনতা কোনভাবেই পবিত্র কুরআনের অবমাননা সহ্য করবে না। কুমিল্লায় পূজামন্ডপে পবিত্র কুরআন অবমাননার সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অপরাধীদের বিরুদ্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে। বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় কুমিল্লায় পূজামন্ডপে পবিত্র কুরআন অবমাননার ঘটনায় বিক্ষুব্ধ তাওহিদী জনতার উপর নির্বিচার গুলি বর্ষণের ঘটনারও তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় আরো বলেন, বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি বিনষ্টের নানামুখী ষড়যন্ত্র চলছে। কুমিল্লায় পবিত্র কুরআন অবমাননার ঘটনা গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ। এ ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সবাইকে সজাগ ও সচেতন হতে হবে। নেতৃদ্বয় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি রক্ষায় ধর্মপ্রাণ তাওহিদী জনতাকে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ