ঢাকা, বৃহস্পতিবার 28 October 2021, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

আজারবাইজানে কারাবাখ যুদ্ধের বার্ষিকী পালন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: এশিয়া-ইউরোপের সীমান্তবর্তী ককেশাস অঞ্চলের নাগরনো-কারাবাখ নিয়ে আঞ্চলিক দুই দেশ আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে কারাবাখ যুদ্ধের প্রথম বার্ষিকী পালিত হচ্ছে সোমবার। বিভিন্ন আয়োজনে দিবসটি আজারবাইজানে পালিত হচ্ছে।

দিবসটি উপলক্ষে আজারবাইজানি প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ সাবেক প্রেসিডেন্ট হায়দার আলিয়েভের কবর জেয়ারত করেন। এই সময় তার সাথে ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্টলেডি মেহরিবান আলিয়েভা।

এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে বাকুতে সমুদ্র তীরবর্তী সড়কে এক অনুষ্ঠানে যুদ্ধে নিহত আজারবাইজানিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তারা।

পরে দিবসটি স্মরণে বাকুতে এক পদযাত্রার আয়োজনে অংশ নেন প্রেসিডেন্ট আলিয়েভ ও ভাইস প্রেসিডেন্ট আলিয়েভা।

কারাবাখ যুদ্ধের প্রথম বার্ষিকী উপলক্ষে আজারবাইজানের সব মসজিদ, গির্জা ও সিনাগগে বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনার আয়োজন করা হয়।

কারাবাখ যুদ্ধের নিহতদের কবর জেয়ারতে বাকুর কবরস্তানসহ বিভিন্ন স্থানে ভিড় করছেন আজারবাইজানিরা।

১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে স্বাধীনতার পর থেকেই আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। ১৯৯৪ সালে আজারবাইজানের ভূমি হিসেবে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত নাগরনো-কারাবাখ ও এর কাছাকাছি আরো সাতটি অঞ্চল আর্মেনিয়া দখল করে নিলে এই উত্তেজনা বাড়ে।

গত বছরের ২৭ সেপ্টেম্বর, আর্মেনিয়া আজারবাইজানের সামরিক বাহিনী ও সাধারণ মানুষের ওপর হামলা করলে দুই দেশ নতুন করে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে।

৪৪ দিনের যুদ্ধে আর্মেনিয়ার দখল থেকে মুক্ত করে আজারবাইজান বিভিন্ন শহর ও অন্তত তিন শ’ জনবসতি ও গ্রামের নিয়ন্ত্রণ নেয়, যা প্রায় তিন দশক আর্মেনীয় দখলের অধীনে ছিল।

যুদ্ধ বন্ধ করতে ও সংঘাতে দীর্ঘস্থায়ী সমাধানের উদ্দেশে দেশ দু’টি রাশিয়ার মধ্যস্থতায় ১০ নভেম্বর একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে।

রাশিয়ার মধ্যস্থতায় সম্পাদিত যুদ্ধবিরতি চুক্তিটি আজারবাইজানের জয় ও আর্মেনিয়ার পরাজয় হিসেবে মনে করা হয়। চুক্তিটির ফলে আর্মেনিয়াকে নাগরনো-কারাবাখ থেকে তাদের সশস্ত্র বাহিনীকে সরিয়ে ফেলতে হচ্ছে।

যুদ্ধবিরতি তদারকে তুরস্ক ও রাশিয়ার মধ্যে স্মারক চুক্তির আওতায় নাগরনো কারাবাখের আগদাম অঞ্চলে একটি যৌথ মনিটরিং সেন্টার চালু করা হয়েছে। যৌথ এই মনিটরিং সেন্টার থেকে তুরস্ক ও রাশিয়ার সেনাবাহিনী যৌথভাবে যুদ্ধবিরতি তদারকি করছে।

সূত্র : আজেরনিউজ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ