বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

মেডিকেল কলেজে ক্লাস শুরু

আঠার মাস পরে সহপাঠীদের সাথে দেখা। কেউ ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন আবার কেউ সেলফি তুলতে ব্যস্ত। ছবিটি গতকাল ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে তোলা -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : প্রায় দেড় বছর বন্ধ থাকার পর দেশের সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ক্লাস শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার ক্লাস শুরুর পর প্রথম দিন প্রথম, দ্বিতীয় ও পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীরা শ্রেণিকক্ষে এসেছেন।
করোনাভাইরাস মহামারির শুরুতে গত বছর ১৭ মার্চ দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় গত ২ সেপ্টেম্বর স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে মেডিকেল কলেজে ক্লাস শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। এর মধ্যে রোববার দেশের সব প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হয়। তার পরদিনই শুরু হল মেডিকেলের ক্লাস।
এতদিন অনলাইনে তাত্ত্বিক বিষয়ের পাঠদান হলেও মেডিকেলের ব্যবহারিক ক্লাসগুলো বন্ধ ছিল। সোমবার শুরু হয়েছে সেসব ক্লাসও। সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এমবিবিএস কোর্সের নবীন শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশনও হয়েছে। শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে কলেজের ফটক এবং শ্রেণিকক্ষের দরজা সাজানো হয় বেলুন দিয়ে। অভিক্লাস বন্ধ থাকায় পড়ালেখার যে ক্ষতি হয়েছে তা পুষিয়ে নেয়ার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন অধ্যক্ষ ডা. মো. টিটু মিঞা। প্র্যাকটিক্যাল এবং ক্লিনিক্যাল ক্লাসগুলো নিতে সমস্যা হয়েছিল। এটা পোষাতে আমরা ক্লিনিক্যাল ক্লাসগুলো ডাবল নিচ্ছি। যে ক্ষতিটুকু হয়েছে ডাবল ক্লাস নিয়ে হলেও তা ঠিক করতে রেডি আছেন শিক্ষকরা। অনেক বেসরকারি মেডিকেল কলেজে সব বর্ষের পাঠদান শুরু হয়েছে।
নাইটিঙ্গেল মেডিকেল কলেজের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আসিফ হাসান শুভ বলেন, মেডিকেল পড়াশোনা হাতেকলমে হওয়া খুবই জরুরি। অনলাইনে ক্লাস করে আর কত আগানো যায়! যদিও আরও আগে খুলে দিলে ভালো হতো কিন্তু এটা ভালো হয়েছে। আরও লেট করলে আরও ক্ষতি হয়ে যেত।
স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের হিসাবে, দেশের ৩৭টি সরকারি এবং ৭১টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে প্রায় ৫০ হাজার শিক্ষার্থী পড়ালেখা করছেন। প্রতি বছর সরকারি মেডিকেল কলেজের ৪ হাজার ৩৫০টি এবং বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ৬ হাজার ২৪২টি আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ