বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

গৃহযুদ্ধ এড়াতে যেসব নেতাকে পাশে দরকার তালেবানের  

২৬ আগস্ট, ইন্টারনেট: দীর্ঘ দুই দশক পর আফগান বাহিনীকে হটিয়ে ফের আফগানিস্তানের শাসন ক্ষমতা দখল করেছে তালেবান। আশরাফ গনি সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করলেও দেশটির  সব প্রদেশ দখলে নিয়ে পারেনি তারা। নর্দান অ্যালায়েন্সের সাবেক ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত পাঞ্জশির এখনো দখল নিতে পারেনি তালেবান। পাঞ্জশিরের দখল ধরে রাখতে লড়ে যাচ্ছে তাজিক যোদ্ধারা।

তাই বলা হচ্ছে ক্ষমতা দখল তালেবানের জন্য হয়তো সবচেয়ে সহজ কাজ ছিল। কিন্তু যুদ্ধবিধ্বস্ত আর অর্থনৈতিকভাবে ভেঙে পড়া দেশকে শান্তিপূর্ণভাবে শাসন করা তালেবানের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।  তালেবান ভালো যোদ্ধা হতে পারে কিন্তু কিভাবে তারা এই বৈচিত্যময় দেশটিকে প্রায় নগণ্য আধুনিক অবকাঠামো দিয়ে শাসন করবে, সেটাই দেখার বিষয়।

অতীতেও তালেবানের মধ্যে দলীয় কলহের নজির আছে। তাই গৃহযুদ্ধ এড়িয়ে বিভিন্ন প্রভাবশালী নেতা আর উজবেক, তাজিক এবং হাজারা সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি স্থিতিশীল সরকার গঠন করাই তালেবানের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে।

এদিকে সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আমরুল্লাহ্ সালেহ্ এবং তাজিক মুজাহিদিন কমান্ডার আহমদ শাহ মাসুদের ছেলে আহমদ মাসুদ ইতোমধ্যেই তালেবান শাসনের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ করেছে। তাই এই পরিস্থিতিতে গৃহযুদ্ধ এড়াতে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ  নেতাদের তালেবানের পাশে প্রয়োজন বলে একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে বেশ কয়েকজন নেতার তালিকায় দেওয়া হয়েছে। 

গুলবুদ্দিন হেকমতিয়ার, সাবেক প্রধানমন্ত্রী: আফগানিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ৭২ বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী গুলবুদ্দিন হেকমতিয়ার বর্তমানে তালেবান নেতাদের সঙ্গে সরকার গঠন নিয়ে আলোচনা করছেন।  পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর সাথে ঘনিষ্ঠতার কারণে আফগান রাজনীতিতে এবং তালেবানের নতুন সরকার গঠনে গুলবুদ্দিন হেকমতিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে বলে মনে করা হয়। 

হামিদ কারজাই, সাবেক প্রেসিডেন্ট : সাবেক আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই নতুন সরকার গঠনের জন্য তালেবানদের সাথে অন্যতম প্রধান আলোচক হিসেবে কাজ করছেন। ৬৩ বছর বয়সীকে বলা হতো মার্কিনিদের পছন্দ করা আফগান প্রেসিডেন্ট। তাকে তালেবান হত্যাও করতে চেয়েছিল। তবে শাসনামলের শেষের দিকে ২০১৪ সালের পর যুক্তরাষ্ট্রে মার্কিন সেনাদের উপস্থিতি বাড়ানো আর ড্রোন হামলার চালানোর অনুমতি নিয়ে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে অস্বীকৃতি জানান কারজাই। এজন্য তাকে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়।

আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ, রাজনীতিবিদ: চিকিৎসক থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ এক সময় নর্দান অ্যালয়েন্সের নেতা আহমদ শাহ মাসুদের উপদেষ্টা ছিলেন। তাজিক সম্প্রদায়ের এই নেতা তালেবানের কাছে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের জন্য আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

আবদুল রশিদ দুস্তম, সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট : ৬৭ বছর বয়সী উজবেক নেতা সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট আবদুল রশিদ দুস্তমের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে জানা যায়নি। তালেবানের হাতে মাজার-ই-শরিফ পতনের পর থেকেই তিনি পালিয়ে রয়েছেন।

১৯৯৬-২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের প্রথম দফায় শাসনামলে নর্দান অ্যালায়েন্সের হয়ে লড়েছিলেন তিনি। 

আমরুল্লাহ সালেহ, আফগানিস্তানের ভারপ্রাপ্ত প্রধানমন্ত্রী: আশরাফ গনি সরকারের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট, বর্তমান আফগানিস্তানের তত্ত্ববধায়ক সরকারের প্রধান আমরুল্লাহ সালেহ তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতা দখলের পরও দেশ ছেড়ে পালাননি। বর্তমানে তিনি পাঞ্জশির উপত্যকায় তাজিক নেতা আহমদ মাসুদের সাথে যোগ দিয়ে তালেবানের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলেছেন। ২০১৭ সালে আশরাফ গনি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে যোগ দেন সালেহ। একই সাথে ৪৮ বছর বয়সী এই নেতা দেশটির গোয়েন্দা সংস্থারও প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আহমদ মাসুদ, তাজিক বিদ্রোহী নেতা : ৩২ বছর বয়সী তাজিক বিদ্রোহী নেতা আহমদ মাসুদ ‘পাঞ্জশিরের সিংস’ হিসেবে পরিচিত আহমদ শাহ মাসুদের ছেলে। আহমদ শাহ মাসুদ নর্দান অ্যালায়েন্সের নেতা ছিলেন। 

আতা মোহাম্মদ নূর, প্রাদেশিক নেতা : ৫৭ বছর বসয়ী তাজিক নেতা আতা নূর মোহাম্মদ সোভিয়েতের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন। তালেবানের শত্রুদের মধ্যে অন্যতম আতা নূর মোহাম্মদ। তালেবানের বিরুদ্ধে মিলিশিয়া বাহিনী গঠন করে তিনি প্রতিরোধ গড়ে তুলছেন বলে জানা গেছে। বর্তমানে উজবেকিস্তান আছেন আতা মোহাম্মদ নূর।

২০১৮ সালে আশরাফ গনি সরিয়ে দেওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি উত্তরাঞ্চলীয় বালখ প্রদেশের গভর্নর ছিলেন।

মোহাম্মদ করিম খলিলি, হাজারা নেতা: ৭১ বছর বয়সী হাজারা নেতা মোহাম্মদ করিম খলিলি আফগানিস্তানের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তিনি পাঞ্জশিরের সংখ্যালঘু হাজারা সম্প্রদায়ের সদস্য। ১৫ আগস্ট তালেবান কাবুল দখলের পর পাকিস্তানে যেসব  জ্যেষ্ঠ আফগান রাজনীতিবিদ গিয়েছিলেন, সেই  প্রতিনিধিদলে খালিলিও ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ