সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২
Online Edition

গ্লোবাল পিস অ্যাওয়ার্ডের জন্য মনোনীত  ২০ বাংলাদেশীসহ ৪৮ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান

স্টাফ রিপোর্টার: যাদের অনুকরণীয় প্রচেষ্টা অন্যদের জীবনকে উল্লেখযোগ্যভাবে উন্নত করেছে এবং শান্তি ও মানবিক সেবার সংস্কৃতিতে ধারাবাহিকভাবে অবদান রেখেছে তাদের পুরস্কৃত করছে ডিজিটাল সোশ্যাল ইনোভেশন ফোরাম । বিশ্ব আন্তর্জাতিক শান্তি দিবসে ২১ সেপ্টেম্বর দুবাইয়ের ক্রাউন প্লাজায় ৬ ক্যাটাগারিতে মোট ১৮ জন সাহসী, সৃজনশীল উদ্যোক্তা ও নেতাকে প্রথমবারের মতো গ্লোবাল পিস অ্যান্ড হিউম্যানিটেরিয়ান অ্যাওয়ার্ড ২০২১ সম্মাননা দেওয়া হবে। এ লক্ষ্যে ১৫ আগস্ট বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় আনুষ্ঠানিকভাবে নমিনেশন আবেদন কার্যক্রম শেষ হয়। এ পুরস্কার পেতে বিশ্বের ৩১টি দেশ থেকে আবেদন করেন ১ হাজার ৬৭৫ জন। এদের মধ্য ২০ জন বাংলাদেশিসহ মোট ৪৮ জন মনোনীত হয়েছেন।

বাংলাদেশ থেকে মনোনীতদের মধ্যে রয়েছেন- ইকো নেটওয়ার্ক প্রতিষ্ঠাতা শামীম আহমেদ মৃধা, সেভ সিলেট প্রতিষ্ঠাতা আয়ান মুমিনুল, শিক্ষাবিদ তন্ময় পাল চৌধুরী, ড্রিম ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আরিফুর রহমান শাফায়েত, সিজ দ্য ডে’র হেড অব মার্কেটিং আকিদা বিনতে ইসলাম নুহা, ডা. মো. রিফাত আল মাজিদ ভূঁইয়া, গিভ বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মাদ সাইফুল্লাহ মিঠু, ডিবে অর্গানাইজার বিডির প্রেসিডেন্ট এইচ এম মারজান, প্রত্যুষ প্রতিষ্ঠাতা তানভির হাসান, নন্দিতা সুরক্ষা প্রতিষ্ঠাতা তাহিয়াতুল জান্নাত, হেল্প দ্য ফিউচার প্রতিষ্ঠাতা সাইফুল্লাহ খালেদ ও ওয়ান অব ইউ প্রতিষ্ঠাতা আজিজুল ইসলমা নিলয়।   বাংলাদেশে থেকে আরও নির্বাচিত হয়েছেন-ইঞ্জিনিয়ার্স প্রতিষ্ঠাতা এ এস এম সাদমান সাকিব, ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল অব হুইলচেয়ার ক্রিকেটের সিইও মাহবুবুর রহমান, কলামিস্ট সাজিয়া আফরিন সুলতানা, বাংলাদেশ ইয়্যুথ মেন্টাল হেলথ অ্যাওয়ারনেস ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠাতা আইমান মাহমুদ, আর্শি কো-ফাউন্ডার সৈয়দা নাজনিন আহমেদ, পেনি ফর মানির প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট জেসান রেহমান এবং খন্দকার আবদুল্লাহ আল তাহমীদ, প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি, ইয়ুথপ্রেনার নেটওয়ার্ক। পাশাপাশি টিম ব্যর্থ ও ইয়্যুথ অ্যাকশন ফর বাংলাদেশ নামে দু’টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনও বাংলাদেশ থেকে মনোনীত হয়েছে।

এছাড়া বিশ্বের বিভন্ন দেশ থেকে মনোনীতরা হলেন-যুক্তরাজ্যের ক্রিয়েটিভ আর্টস ডিরেক্টর অ্যালে জালাতার, পাকিস্তানের সোশ্যাল অ্যাক্টিভিস্ট ফারহান উইলিয়াত ভাট, লাইবেরিয়ার পাবলিক স্পিকার অ্যাম্ব এলিয়াজার এস বার্ক লে, নাইজেরিয়ার ইয়াফ-ইয়াং আফ্রিকার প্রতিষ্ঠাতা রুথ এগবেদি, আফগানিস্তানের আহমাদ নাওয়িদ মুবারিজ, শ্রীলঙ্কার গণমাধ্যমকর্মী আথামবাওয়া মোহাম্মাদ হিজাম, ভারতের অর্গানিকো বিউটিফাইয়িং লাইফ প্রতিষ্ঠাতা পুজা কাউল, ঘানার বোনাবিয়ার ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠাতা বার্নার্ড কফি বোনারপার্তে, দক্ষিণ আফ্রিকার মোটিভেশনাল স্পিকার দেইখ লেদি মোয়াবিলো, মালোয়েশিয়ার টিডিএস মালোয়েশিয়া চেয়ারপাসন জয়া দেবি শ্রিনিওয়াশান, পাকিস্তানের সামীর খান, ফিজির ক্রিস্টিকা সিং, তাইওয়ানের নিকোলে, চীনের লিজ ইয়ং ওং, নাইজেরিয়ার বাবাংগিদা কবির রমা ও ফিনল্যান্ডের সালাদো কাসিম। এর বাইরেও ভারত থেকে সোশ্যাল ওয়ার্কার প্রুধি গোল্লা, প্রদীপ দাশ গুপ্ত, ড. শঙ্করপ্পা নীলাঞ্জনা স্যান্যাল ও আনুশকা সিনহা।   প্রথম ধাপে আরও মনোনয়ন পেয়েছেন- নাইজেরিয়ার আজুবাইক মাইকেল নাওচাকু, শ্রীলঙ্কার সারওয়ান সারানায়া, লাইবেরিয়ার হ্যানসন জি ব্লায়ন, গায়ানার ব্রাডলি ডনার ও ফিলিপিনের জোভেন আলকানটারা। আয়োজনের বিষয়ে বিডিএসআইফ ও ডিএসআইএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলী আকবর বলেন, মূলত যাদের অনুকরণীয় প্রচেষ্টা অন্যদের জীবনকে উল্লেখযোগ্যভাবে উন্নত করেছে এবং শান্তি ও মানবিক সেবার সংস্কৃতিতে ধারাবাহিকভাবে অবদান রেখেছে তাদেরকেই এ পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।  

তিনি আরও বলেন, আয়োজনটি ৫০ শতাংশ খরচ দেওয়ার মাধ্যমে শুধুমাত্র মনোনীত ব্যক্তিরাই অংশগ্রহণ করতে পারবেন। মূল আয়োজনেই বিজয়ীদের নাম প্রকাশ করা হবে। ইন্টারফেইথ লিডারশিপ, লিডারশিপ ইন স্ট্রেনথেনিং ফ্যামেলিস, আউটস্টান্ডিং সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড, গুড গভার্নেন্স অ্যাওয়ার্ড, ইনোভেটিভ স্কলারশিপ ফর পিস ও গ্লোবাল পিস অ্যাওয়ার্ড ক্যাটাগরিতে এ মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ