ঢাকা, মঙ্গলবার 28 September 2021, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮, ২০ সফর ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: মালেয়শিয়ায় জরুরি অবস্থা জারির চেষ্টা করায় দেশটির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি উঠেছে।

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ নতুন করে বেড়ে যাওয়ার মধ্যে তা মোকাবেলায় জরুরি অবস্থা ঘোষণার অনুরোধ নিয়ে রাজার কাছে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী ইয়াসিন। কিন্তু সমালোচকরা বলছেন, এর মধ্য দিয়ে ইয়াসিন আসলে পার্লামেন্ট স্থগিত করে দেওয়া এবং পার্লামেন্টে তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের পরীক্ষা এড়ানোর অজুহাত খুঁজছেন।

উপরন্তু রাজা আল-সুলতান আবদুল্লাহ প্রধানমন্ত্রী ইয়াসিনের জরুরি অবস্থা জারির অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করায় তার আসন আরও টলমল হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

কারণ, এক মাস আগেই মালয়েশিয়ার বিরোধী দলীয় নেতা আনোয়ার ইব্রাহিম পার্লামেন্টে তার সংখ্যাগরিষ্ঠ সমর্থন আছে বলে দাবি করেছেন; যে সমর্থন নিয়ে তিনি মুহিইদ্দিন সরকারকে হটিয়ে নতুন সরকার গঠন করতে সক্ষম।

নিজেকে প্রমাণের চেষ্টায় আনোয়ার গত ১৩ অক্টোবর রাজপ্রাসাদে রাজার সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেন।রাজার এখন পরবর্তী পদক্ষেপের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা।

এ পরিস্থিতির মধ্যেই রোববার রাজা প্রধানমন্ত্রী ইয়াসিনের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেন। একইসঙ্গে তিনি রাজনীতিবিদদেরকে আহ্বান জানান, সরকারকে অস্থিতিশীল করে দেয় এমন রাজনীতি না করতে।

কিন্তু ইয়াসিনের এই ব্যর্থতার পর তার জোটের অন্যান্য দলগুলোর নেতারাসহ বিরোধীরা পদত্যাগের দাবি তুলেছেন এবং জরুরি অবস্থা জারির উদ্যোগ নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনাও করেছেন।

মালয়েশিয়ার ক্ষমতাসীন জোটের সবচেয়ে বড় দল ‘ইউনাইটেড মালয় ন্যাশনাল অর্গানাইজেশন’ এর ঊর্ধ্বতন নেতা আহমদ পুয়াদ জারকাশি ফেইসবুকে এক পোস্টে বলেছেন, “মাননীয় রাজা যে রাজনৈতিক খেলায় প্রভাবিত হননি সেজন্য ধন্যবাদ জানাতে হয়। তিনি এতে সায় দিলে দেশ আরও জটিল অবস্থায় চলে যেত।”

তিনি আরও বলেন, “জনগণের কল্যাণই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর একারণেই ইয়াসিনের পদত্যাগ করা উচিত।”

অন্যদিকে, বিরোধীদলীয় আইনপ্রণেতা ওং চেন বলেন, মুহিইদ্দিন ইয়াসিনের দুরভিসন্ধিমূলক প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে রাজা সঠিক কাজই করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর এখন পদত্যাগ করা উচিত কিংবা জরুরি অবস্থার প্রস্তাব দেওয়া মন্ত্রীদেরকে বরখাস্ত করা উচিত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ