বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

কঠোরতম লকডাউনে রাজশাহীতে রাস্তায় বাড়ছে মানুষের সমাগম

রাজশাহী অফিস : কঠোরতম লকডাউনের ষষ্ঠ দিনে রাজশাহীর সড়কে যানবাহন ও মানুষের চলাচল আগের দিনগুলোর চেয়ে বেড়েছে। লকডাউনের পঞ্চম দিনে লকডাউনের বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ৭১ জনের বিরুদ্ধে মামলা এবং একজনকে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। এ সময়ে জরিমানা আদায় করা হয় ৪৫ হাজার ৫০ টাকা। আর স্বাস্থ্যবিধি না মানায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর থাকলেও সচেতনতার অভাব রয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে। দেখা গেছে দোকানি, ক্রেতা, পথচারী অনেকের মুখে মাস্ক থাকছে না।
বুধবার সকালে রাজশাহী নগরের সাহেববাজার, লক্ষ্মীপুর, সাগরপাড়া ও আশপাশের এলাকা ঘুরে দেখা যায়, কেউ চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে চা খাচ্ছেন, আবার কেউ কাঁচাবাবাজারে ঘোরাঘুরি করে চলে যাচ্ছেন। আগের দিনের তুলনায় এদিন কাঁচাবাজার, মাছ ও মুদি দোকানে লোকজনের চলাচল বেড়েছে। প্রধান সড়কে মানুষের সঙ্গে যানবাহনের সংখ্যাও বেশি।
নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় এলাকায় সেনাবাহিনী, আনসার, পুলিশ আর ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম দেখা গেছে। নানা ছুতোয় বের হওয়া মানুষদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে তল্লাশী চৌকিতে, মাস্ক না পরায় করা হচ্ছে জরিমানা।
কঠোরতম লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশের পাশাপাশি রাজশাহীতে ১১ প্লাটুন সোনা, বিজিবি ও আনসার সদস্য কাজ করছে। এছাড়াও ২২টি ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে রয়েছে। এর মধ্যে নগরীতে চারটি ও উপজেলা পর্যায়ে ১৮টি।
রাজশাহীতে লকডাউনের পঞ্চম দিনে লকডাউনের বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ৭১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। এ সময়ে জরিমানা আদায় করা হয় ৪৫ হাজার ৫০ টাকা। আর স্বাস্থ্যবিধি না মানায় একজনকে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। রাজশাহী নগরী ও উপজেলায় এ জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে নগরীতে ৩২টি মামলায় ২৫ হাজার ৬০০ টাকা আর উপজেলাগুলোতে ৩৯টি মামলায় ১৯ হাজার ৪৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।
এর মধ্যে জেলায় সবচেয়ে বেশি জরিমানা করা হয়েছে গোদাগাড়ী উপজেলায়। এই উপজেলায় ৯টি মামলায় ৩ হাজার ৮৫০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এরপর বাঘা উপজেলায় ৫টি মামলায় ৩ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। পরে অবস্থানে রয়েছে জেলার দুর্গাপুর উপজেলা। সেখানে ১০টি মামলায় ২ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ