রবিবার ২৮ নবেম্বর ২০২১
Online Edition

চরফ্যাশনে দুই সাংবাদিককে হত্যার হুমকি ॥ পরিবার অবরুদ্ধ

চরফ্যাশন (ভোলা) সংবাদদাতা : চরফ্যাশন উপজেলার দুই সাংবাদিককে হত্যার হুমকি দিয়েছে দুলার হাট থানার অন্তর্ভুক্ত আহাম্মদ পুর ইউনিয়নের ফরিদাবাদ গ্রামের সন্ত্রাসী ও কিশোর গ্যাং বাহিনী। অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে সাংবাদিক পরিবার। বাসা থেকে বের হতে পারছে না দুই সাংবাদিকসহ তাদের পরিবার। নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে সাংবাদিক পরিবার। শনিবার সন্ধ্যায় দুলার হাট থানার সাংবাদিক নোমান চৌধুরী বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
থানায় দাখিল করা  অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ চরফ্যাশন উপজেলা প্রতিনিধি এম, নোমান চৌধুরী ও জাতীয় দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন চরফ্যাশন উপজেলা প্রতিনিধি মোঃ সিরাজুল ইসলাম দীর্ঘদিন গণমাধ্যমে কাজ করে আসছে। তাদের বাবার বাগানের জমি অংশটুকু দীর্ঘ ৬০ বছর পর্যন্ত ভোগ করে আসছে।
অভিযুক্তরা হলো- মতিন মাঝি (৫০), মোঃ হানিফ (৪৫), মোঃ এমরান (২২), মোঃ ফারুক (৪৫), মোঃ হিরন (২৫), মোঃ হান্নান (২৩), মোঃ শরীফ (২০), মোঃ মিছির (৪০), মোঃ শামিম(১৯), মোঃ ফরহাদ (২০) ও আল আমিন (২১)। দুলার হাট থানায় ২৪ জুলাই ঘটনাটি তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সাংবাদিক এম, নোমান চৌধুরী বাদী হয়ে ওসি মুরাদ হোসেন এর কাছে অভিযোগটি দাখিল করলেও অদৃশ্য কারণে তিনি সাধারণ ডাইরিভুক্ত (জিডি) হিসেবে গ্রহণ করেছেন। যার নং-৮০৫।  
হিরন, হান্নান, শামিম, ফরহাদ ও আল- আমিন এরা কিশোর গ্যাং এর সাথে জড়িত। এরা সংঘবদ্ধ হয়ে কিশোর গ্যাং গড়ে তুলছে। পূর্বপরিকল্পিতভাবে অপরাধীরা কোনো ঘটনা ঘটালে কিশোর গ্যাং বাদীপক্ষের ওপর হামলা চালায়। মতিন, হানিফ, ফারুক ও মিছির এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছে। মতিন-হানিফের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। এরা এলাকায় বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। এরা এলাকায় বিচার শালিশ অমান্য করে আসছে। শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় দুলারহাট থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক এস আই লেলিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
দুলারহাট থানার ওসি মুরাদ হোসেন বলেন, আমি বিষয়টি ডায়রিভুক্ত করেছি। আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ