বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

ফিফার করোনা ফান্ডের অপেক্ষায় বাফুফে

 স্পোর্টস রিপোর্টার : করোনা ভাইরাসের কারণে  বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা  অধিভুক্ত সংস্থাগুলোকে ১ মিলিয়ন ডলার করোনা ফান্ড দিচ্ছে। গত বছর নেওয়া ফিফার এই সিদ্ধান্তের অর্থ ইতোমধ্যে পেয়েছে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত ও নেপাল। এখনও অর্থ পায়নি বাংলাদেশ। 

একদিন আগেই বাফুফে নির্বাহী কমিটির সভায় ফিফা কোভিড ফান্ড বন্টন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। বণ্টন নিয়ে আলোচনা হলেও বাফুফের তহবিলে এখনো ফিফার ফান্ড আসেনি।দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম দুটি দেশ বেশ আগেই এ অর্থ পেয়েছে। সেই দুটি দেশের পাওয়া ও বাংলাদেশের না পাওয়া প্রসঙ্গে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ বলেন, ‘আমরা যতটুকু জানি দক্ষিণ এশিয়ার তিনটি দেশ ইতোমধ্যে পেয়েছে। বাংলাদেশ সহ তিনটি দেশ এখনো পায়নি। নেপাল ও ভারতে করোনা মহামারির তীব্রতা অনেক বেশি ছিল। এজন্য ফিফা হয়তো গুরুত্ব বিবেচনায় তাদের আগে দিয়েছে।বাফুফের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও ফিন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম মুর্শেদি ফান্ড পাওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘ফিফা নীতিগতভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে আমাদের জানিয়েছে তারা ফান্ড দেবে। ফান্ড পেতে যে সমস্ত কমপ্লায়েন্স লাগে সবই আমরা তাদের পাঠিয়েছি এবং তারা সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছে।করোনা ফান্ড ফিফার নিয়মিত অনুদানের বাইরের ফান্ড। এরপরও অনেক আনুষ্ঠানিকতা রয়েছে এ ফান্ড পেতে। ফান্ড পাওয়ার এর স্বচ্ছ বিতরণও খুব গুরুত্বপূর্ণ, ‘ফান্ড আসার পর ফিফাকে আবার হিসাব দিতে হবে কোন কোন খাতে কিভাবে বন্টন হলো। তাই এজন্য ফান্ড প্রাপ্তির নীতিগত নিশ্চয়তার পরই এর বন্টন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

বাফুফের পরিকল্পনা ছিল ক্লাবগুলোর পাশাপাশি জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন ও অন্যান্য অধিভুক্ত সংস্থাকে ফিফার আর্থিক সাহায্য প্রদান করা। জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সাহায্য প্রদানের ক্ষেত্রে কিছুটা সরে এসেছে বাফুফে। ফিন্যান্স কমিটির চেয়ারম্যান প্রাধান্য দিচ্ছেন পুরো ফুটবল পরিবার ভ্যাক্সিনেশনের আওতায় আনার জন্য। অন্য দিকে ক্লাবগুলোর পাশাপাশি জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনও বাফুফের কাছ থেকে ফিফার এই ফান্ডের অপেক্ষায়। বিশেষ করে প্রিমিয়ার লিগের ছোট ক্লাবগুলো ও চ্যাম্পিয়নশীপের ক্লাবগুলো এই ফান্ডের অপেক্ষায় রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ