ঢাকা, বুধবার 27 October 2021, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
Online Edition

কানাডায় গরমে ২৩০ জনের মৃত্যু

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: কানাডা তীব্র তাপদাহে গত শুক্রবার থেকে এ পর্যন্ত ২৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির দক্ষিণ ও উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় তাপমাত্রা সবচেয়ে বেশি। ব্রিটিশ কলম্বিয়া প্রদেশে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৪৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস অর্থ্যাৎ ১২১ ডিগ্রি ফারেনহাইট। এমন পরিস্থিতিকে ‘নজিরবিহীন সময়’ আ্যাখা দিয়েছেন প্রাদেশিক প্রধান।

কানাডায় হঠাৎ করে এই তাপপ্রবাহ বিগত বছরগুলোর রেকর্ড ভেঙে চলছে। শীত প্রধান দেশটিতে এমন অস্বাভাবিক তাপমাত্রায় নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকে। 

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই তাপমাত্রার রেকর্ড ভাঙা খেলা চলছে। এতে শিশু থেকে বৃদ্ধরা দীর্ঘস্থায়ী জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। প্রশাসন বলছে, ভ্যাঙ্কুভার এবং এর পার্শ্ববর্তী এলাকা বার্নাবে এবং সারে-রে'তে আকস্মিক মৃত্যুর ঘটনা বাড়ছে।

সরকার জানিয়েছে, গত চারদিনেই ১৩০ জন মারা গেছেন। আর গত শুক্রবার থেকে এ পর্যন্ত ২৩৩ জনের মৃত্যুর খবর পেয়েছে। তবে সংখ্যা আরও বাড়বে বলেও আশঙ্কা করছেন কর্তৃপক্ষ। ভ্যাঙ্কুভারের পুলিশ কর্মকর্তা স্টিভ অ্যাডিসন জানিয়েছেন, ‘আমরা এখন পর্যন্ত ৬৫ জনের মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি। এখানকার তাপমাত্রা এতটাই বেশি যে আগে কখনোও সহ্য করতে হয়নি’।

ভ্যাঙ্কুভারে গত শনিবার ৯৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট থাকলে সোমবার তা একশ ছাড়ায়। এদিকে রয়েল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ তাদের এখানে সোমবার থেকে ৩৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। আর বার্নাবেতে ৩৪ জন।

মঙ্গলবার টানা তৃতীয় দিনের মতো কানাডার ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছে ব্রিটিশ কলম্বিয়ার লিটন গ্রামে। ঐ এলাকায় তাপমাত্রা ছিল ৪৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস অর্থ্যাৎ ১২১ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

আপাতত তাপামাত্রা কমার লক্ষণ না থাকায় সাধারণ মানুষকে সাবধানে চলাফেরার নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। বিশেষ করে পরিমাণ মতো পানি পানের কথা বলছেন চিকিৎসকরা। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে না বের হওয়ারও পরামর্শ দিচ্ছেন তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ