শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

মিরসরাইয়ে অনলাইন জন্মনিবন্ধন নিয়ে মানুষের ভোগান্তি

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা: চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায় অনলাইন জন্মনিবন্ধন করতে গিয়ে অনেককেই ঝুট-ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। গুণতে হচ্ছে ফি’র কয়েকগুণ বেশি টাকা। ফলে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন মানুষ। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে এমন অবস্থা চলছে। ঝামেলার কারণে অনেকেই জন্ম সনদ নিতে ইউনিয়ন পরিষদে যাচ্ছেন না।
 সনদ পেতে জুড়ে দেওয়া হয়েছে বেশ কয়েকটি শর্ত। এসব শর্ত পূরণ করতে গিয়ে অনেকেরই হাঁসফাঁস অবস্থা। যাদের জন্ম ২০০১ সালের পর তাদের জন্ম নিবন্ধনের জন্য বাবা-মায়ের জন্ম সনদ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে, যাতে সন্তানের জন্ম নিবন্ধন করাতে গিয়ে বিপাকে পড়ছেন অনেকে।
 খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আগে মা-বাবার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিয়েই যে কারও জন্ম নিবন্ধন করা যেত। চলতি বছরের পহেলা জানুয়ারি নতুন নিয়ম কার্যকর হওয়ায় সন্তানের জন্ম নিবন্ধন করাতে গিয়ে আটকা পড়েন অনেক বাবা-মা। আগে তাদের জন্ম নিবন্ধন করতে হয়, তারপর হয় সন্তানের জন্ম সনদ।
 নতুন নিয়ম সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০০১ সাল এবং তারপর থেকে জন্ম নেওয়া শিশুদের জন্ম সনদ পেতে হলে আগে তার মা-বাবার জন্ম নিবন্ধন করতে হবে। আর ২০০১ সালের আগে জন্ম নেওয়া শিশুদের জন্ম নিবন্ধনের জন্য মা-বাবার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর দিলেই হয়।এ নিয়ম চালু হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়ার কথা জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন অভিভাবক।
মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিনহাজুর রহমান জানান, জন্মনিন্ধন অনলাইন করতে বাড়তি টাকা নেওয়ার বিষয়ে বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে লোকজন ফোনে জানাচ্ছেন। সরকারি ফি’র বাইরে প্রতি নিবন্ধনের জন্য উদ্যোক্তারা ৫০-১০০ টাকা বেশি নিতে পারেন, কিন্তু পরিষদের সচিবরা এক টাকাও বেশি নেওয়ার সুযোগ নেই। বাড়তি টাকা আদায়ের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের বরাবরে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনা না মানতে এবং কোন অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া তিনি জানান, যারা আগে জন্মনিবন্ধন করেছেন কিন্তু অনলাইনে নেই, তাদের কেউ আবেদন করলে এবিষয়ে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ