বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

শিশুতোষ ছড়াগ্রন্থ বিয়েবাড়ি 

জাহিদুর রহমান :

 ছড়াকবি ও শিশুসাহিত্যিক শাজাহান কবির শান্ত রচিত শিশুতোষ ছড়ার বই ‘বিয়েবাড়ি’। চাররঙা আকর্ষণীয় প্রচ্ছদ  সমৃদ্ধ বইটির প্রতিটি ছড়ার সাথে রয়েছে রঙিন চিত্র অলংকরণ। ২৮ টি ছড়া সমৃদ্ধ বইটিতে ছেলেভুলানো ছড়াই বেশি, তবে জাগরণী ছড়াও আছে। 

বইয়ের শিরোনাম যুক্ত ‘বিয়েবাড়ি’ ছড়াটি একটি ছেলেভুলানো ছড়া। যেখানে একটি হুলোবিড়াল বর সেজেছে আর একটি ইঁদুর সেজেছে বউ। আর টিকটিকি, তেলাপোকা, মশা, মাছি, মাকড়সা আর পুঁটিমাছ সকলে মিলে বিয়ের আনন্দ আয়োজনে তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য পালনে ব্যতিব্যস্ত। 

কচি-কাঁচা শিশু-কিশোরদের অনুসন্ধিৎসু মনকে জাগিয়ে তুলতে আর তাদের বড়ো হবার প্রেরণা জোগাতে পারে, সেরকম একটি ছড়ার নাম- ‘একটা আকাশ কিনব বলে’। 

 

সবুজ সবুজ বিল ছুঁয়েছি

কিনব বলে নীল ছুঁয়েছি

খুঁজতে গিয়ে মনের খবর

মানুষগুলোর দিল ছুঁয়েছি

ছোট-বড় মিল ছুঁয়েছি।  

 

সব ছোঁয়াদের স্বাদে আমার

কাঁপলো যখন স্বর,

একটা আকাশ কিনব বলে

ছুটছি নিরন্তর।

 

বইয়ের অন্তর্ভুক্ত জাগরণমূলক এরকম আরেকটি ছড়া- ‘ইচ্ছে’। শিশুমনের নানারকম ইচ্ছের প্রকাশ ও সেগুলো বাস্তবায়নের আকাংখার কথা ফুটে উঠেছে এই ছড়াটিতে, যেখানে শিশুরা ময়ূরের ডানার মতো নানান রঙে নিজকে রাঙাতে চায়, বিদঘুটে সব মিথ্যাকে ভেঙে দিয়ে বিনির্মাণ করতে চায় সত্যকে।

বইয়ের একটি উল্লেখযোগ্য ছড়া ‘আমার খুকু’।  ছড়াটিতে ছড়াকার একটি ছোট্ট খুকুমনির বৈশিষ্ট্য তুলে ধরেছেন সুচারুভাবে। যে খুকুটির আছে শাপলা ফোঁটা গাল, যার হাসি মিষ্টি, ময়না কিম্বা টিয়ে পাখির কন্ঠের মতো সুরেলা যার কথা। এই খুকু- গল্প শুনতে বেশ পটু, রূপকথার গল্প আর পাখির ছড়া শুনতে সে ভালোবাসে। ঘুম কাড়ানিয়া এমন একটি খুকু পাশে থাকলে কবির পরাণ তো দুলে উঠবে নিশ্চয়ই-

 

আদর ভরা ছোট্ট খুকুর দেহ

সাজানো তা সদ্যফোটা ফুলে

সবার সোনামণি আমার খুকু

থাকলে পাশে পরাণ ওঠে দুলে।

 

গল্প শুনতে খুকু অনেক পটু

ঘুম কেড়ে নেয় অনেকটা রোজ রাতে,

রূপকথা আর পাখির ছড়া শুনে

আনন্দে বেশ মন ভরে যায় তাতে।”

 

‘ভয় পেলে ভয়’ একটি জিজ্ঞাসু ছড়া। মানুষ, গরু এরকম বৃহদাকারের প্রাণী, যে কিনা ক্ষুদ্র একটি প্রাণী মশাকে ভয় পায়, পাগলা দাশু নামের এক লোক যে কিনা ছারপোকার ভয়ে ভিটেবাড়ি পর্যন্ত ত্যাগ করেছে। আবার ঈগল ভয় পায় সাপকে, উট শকুনকে। তেলাপোকা দেখে ইঁদুর ছুটে পালায়। ভয় নিয়ে তাই তৈরী হয় জিজ্ঞাসা-

 

ভয় পেলে তো ভয়

ফড়িং দেখে বাঘ পালাল

কেমনে এটা হয়?

 

‘অনেক কিছু জানতে হবে’ একটি উপদেশমূলক ছড়া। ছড়াকবির ভাষায় -

 

জানতে হলে শিখতে হবে

পড়তে হবে বই

তাতে তোমার পাল্টে যাবে

জীবন অবশ্যই। 

 

সঠিক হলে বলতে হবে

চলতে হবে পথ

সত্য হয়ে জ্বলবে তখন

তোমার ভবিষ্যৎ। 

ছোটদের চেনাজানা পরিবেশ ও প্রতিবেশ উপজীব্য হয়ে উঠেছে ‘বিয়েবাড়ি’ বইয়ের ছড়াগুলোতে। ঘরের বিড়াল, গোয়ালের গরু, ডোবার ব্যাঙ, পুকুরের হাঁস, বন-বাদাড়ের কাঠবিড়ালি, ফুলবাগানের প্রজাপতি প্রভৃতি স্বরূপে উঠে এসেছে বিভিন্ন ছড়ায়। এসব ছড়া পাঠের মধ্য দিয়ে শিশুরা জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি আনন্দও লাভ করবে।

ছড়াবইয়ের মুখবন্ধে  ছড়াকবি আহমেদ সাব্বির লিখেছেন - “তরুণ ছড়াকবি শাজাহান কবির শান্ত’র ছড়াগ্রন্থ প্রকাশ অফুরন্ত আনন্দের খবর। ছন্দের ফুলঝুরিতে সাজানো ছড়াগুলো বেশ মজার। আমাদের চারপাশের পোষমানা পশুপাখিদের অন্তরঙ্গ রঙ্গরসে ভেজানো ছড়াগুলি ভারি মিষ্টি। শিশুরা অর্থ খুঁজে না, আনন্দ বুঝে। পা পিছলে আলুর দম শুনলেই ওরা হেসে ওঠে। হাট্টিমাটিম টিম ওদের প্রিয়, কানা বগির ছা ওদের আত্মীয়।  বিয়েবাড়ি’তে তেমন কিছু ছড়া রয়েছে যেগুলো শিশুদের মন জয় করবে। বড়দেরও ভালো লাগবে। 

শান্তর ছড়াগুলি যেমন সাবলীল তেমন গতিশীল।  কল্পনার রঙে আঁকা ছড়ার ছবিতে বাস্তবজীবনের রঙধনু ভাসতে দেখি।”

ফেব্রুয়ারি ২০২১  চট্টগ্রামের ঝিলমিল প্রকাশনী কর্তৃক ‘বিয়েবাড়ি’ বইটি প্রকাশ পেয়েছে। ছড়াকবি বইটি উৎসর্গ করেছেন ছড়াসাহিত্যের কিংবদন্তি লুৎফর রহমান রিটনকে। ‘বিয়েবাড়ি’ ছড়াবইটির বহুল পাঠ ও প্রচার প্রত্যাশা করি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ