শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

রামেক হাসপাতালে রোগী ঢুকছে লাশ বের হচ্ছে ॥ আরো ১৩ মৃত্যু

রাজশাহী অফিস : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের এখনকার পরিস্থিতি এমন যে, একদিকে রোগী ঢুকছে অপরদিকে লাশ বের হচ্ছে। এখানে আরো ১৩ জন করোনারোগীর মৃত্যু হয়েছে। নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ১১৩ জন। এসময় শহরের চেয়ে গ্রামের পরিস্থিতিই বেশি খারাপ বলে জানা গেছে। এদিকে নগরীতে দ্বিতীয় সপ্তাহের লকডাউনও অব্যাহত রয়েছে।
রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রেকর্ড সংখ্যক রোগী ভর্তি হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী। তিনি বলেন, নতুন ভর্তি রোগীর প্রায় ৬০ শতাংশই গ্রাম থেকে এসেছে। বর্তমানে গ্রামের পরিস্থিতি ভয়াবহ উয়ে উঠেছে। শামীম ইয়াজদানী বলেন, সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে না পারায় থামানো যাচ্ছে না করোনার সংক্রমণ। তাই এখন রোগীর সংখ্যা প্রতিদিনই রেকর্ড ভাঙছে। তবে এখনো সময় ফুরিয়ে যায়নি। সবার সম্মিলিত প্রয়াসেই এই মহারারি মোকাবেলা সম্ভব বলে জানান তিনি। গতকাল সোমবার রামেক হাসপাতালে করোনার চিকিৎসা ও সংক্রমণের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফিং-এ এসব কথা জানান হাসপাতাল পরিচালক। এই হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘন্টায় আরো ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে এদের মধ্যে ৪ জন পুরুষ ও ৯ জন নারী। যাদের ৬ জনের করোনা পজেটিভ ছিল। বাকিরা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। আর গত ২৪ ঘন্টায় রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন ৬২ জন। এমন পরিস্থিতিতে হাসপাতালের ৩০৯ বেডের বিপরীতে মোট ভর্তি রোগী আছেন ৪০২ জন। হাসপাতালে নতুন ভর্তি ৬২ রোগীর মধ্যে গ্রাম থেকে আসা ৩৬ জন আর শহরের ২৬ জন। এছাড়া সোমবার সকাল পর্যন্ত ৩০৯ বেডের বিপরীতে মোট ভর্তি রোগী আছেন ৪০২ জন। এরমধ্যে রাজশাহীতে ২৬৪ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৭০ জন, নাটোরের ৩০ জন, নওগাঁর ২৯ জন, পাবনার ৫ জন, কুষ্টিয়ার ২ জন এবং চুয়াডাঙ্গার ২ জন রয়েছেন। আইউসিইউতে ভর্তি আছেন ১৯ জন। এদিকে, ধীরে ধীরে গ্রামে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় গ্রামাঞ্চলে স্থানীয় প্রশাসন, আইশৃঙ্খলাবাহিনী, বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবকসহ দায়িত্বরত সকলকে স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে নিশ্চিত করার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।
একদিনে আক্রান্ত ২০৬ জন
রাজশাহীতে একদিনের ব্যবধানে সামান্য কমেছে করোনা সংক্রমণ। তবে রোববার দুটি ল্যাবে রাজশাহীর ৪৭৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২০৬ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে। রাতে প্রকাশিত নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে দেখা গেছে, আগের দিনের চেয়ে ৩ দশমিক ৮ শতাংশ কমে করোনা শনাক্তের হার হয়েছে ৪৩ দশমিক ১৯ শতাংশ। যা আগের দিন শনিবার ৪৬ দশমিক ৯৯ শতাংশ। এর আগে গত শুক্রবার ৩০ দশমিক ০৬, বৃহস্পতিবার ৪৩ দশমিক ৮৭, বুধবার ৪১ দশমিক ৫০, এবং মঙ্গলবার ছিল ৪৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ। ল্যাব সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল ল্যাবে তিন জেলার ৫৫৬ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা পজেটিভ এসেছে ২৪৫ জনের। রাজশাহী ছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৭৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৮ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। যা শনাক্তের হার ৪৮ দশমিক ৭১ শতাংশ। এছাড়াও নাটোরের একজনের নমুনা পরীক্ষা করে পজেটিভ এবং বিদেশগামী দুইজনের নমুনা পরীক্ষা করে নেগেটিভ এসেছে। এদিকে, সীমান্তবর্তী জেলা রাজশাহীতে গত ১১ জুন থেকে চলছে ‘বিশেষ লকডাউন’। এরপরও রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মৃত্যুর সংখ্যা কমছে না। সেই সঙ্গে রোগীর সংখ্যাও বাড়ছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ