ঢাকা, রোববার 25 July 2021, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৪ জিলহজ্ব ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

খুলনায় হাসপাতালের ১ শয্যার বিপরীতে ৬ করোনা রোগী

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: খুলনা বিভাগে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৩৩ জন। এ নিয়ে বিভাগের ১০ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৩ হাজার ৬৪৪ জনে। এর মধ্যে ৩৩ হাজার ৯৩৪ জন সুস্থ হয়েছেন। ৭৭৫ জন জনের মৃত্যু হয়েছে। মোট আক্রান্ত থেকে সুস্থ ও মৃতদের বাদ দিলে বর্তমানে বিভাগে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ৯৩৪ জন। বাংলা ট্রিবিউন

তবে উৎকণ্ঠার বিষয় হলো, বর্তমানে বিভাগের হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগীদের জন্য শয্যা রয়েছে মাত্র এক হাজার ৪৩৭টি। এর মধ্যে জেলা সদর হাসপাতালে ৯৩৭টি এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে রয়েছে ৫০০টি শয্যা। হিসাব করে দেখা যায়, বর্তমানে একটি শয্যার বিপরীতে বিভাগে রোগী রয়েছে ৬.২১ জন। অর্থাৎ শয্যার তুলনায় রোগীর সংখ্যা ৬ গুণ বেশি। যদিও এসব রোগীর বেশিরভাগই বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবু হাসপাতালের ওপর চাপ ক্রমেই বাড়ছে। কারণ বিভাগে প্রতিদিনই আক্রান্তের নতুন রেকর্ড হচ্ছে।

শুক্রবার (১৮ জুন) সকালে স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া রিপোর্ট বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। জানা গেছে, বিভাগের খুলনা ও কুষ্টিয়ার হাসপাতালগুলোতে সবচেয়ে বেশি রোগীর চাপ রয়েছে।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক দফতর সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান সক্রিয় রোগীর মধ্যে খুলনায় ২৩৫২, বাগেরহাটে ৭৫০, সাতক্ষীরায় ৮৬৮, যশোরে ২৪০২, নড়াইলে ৩৩৩, মাগুরায় ১৩১, ঝিনাইদহে ৩৬৩, কুষ্টিয়ায় ৯৬৫, চুয়াডাঙ্গায় ৪৫০ ও মেহেরপুরে ৩২১ রয়েছেন। এর মধ্যে জেলা সদরের হাসপাতালগুলোর ৯৩৭টি শয্যার ৪৭৫ টিতে রোগী ভর্তি রয়েছেন। বাকি ৪৬২টি শয্যা খালি পড়ে আছে। আর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোর ৫০০ শয্যায় রোগীর তেমন চাপ নেই।

জেলা সদরের হাসপাতালগুলোর মধ্যে খুলনার ১৩০ শয্যায় ১৬৮, বাগেরহাটের ২০ শয্যায় ২০, চুয়াডাঙ্গার ১৫০ শয্যায় ৪০, যশোরের ১১১ শয্যায় ৫১, ঝিনাইদহের ৫০ শয্যায় ২১, কুষ্টিয়ার ৭০ শয্যায় ১০২, মাগুরার ৫০ শয্যায় ৭, মেহেরপুরের ৫২ শয্যায় ২৪, নড়াইলের ১২০ শয্যায় ২১, সাতক্ষীরার ১৮৪ শয্যায় ২১ জন রোগী ভর্তি আছেন।

এছাড়া বিভাগের ১০ জেলার ৫০টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগীদের জন্য ১০টি করে ৫০০টি শয্যা রয়েছে। কিন্তু সেখানে রোগীর চাপ নেই তেমন। রোগীর বেশি চাপ রয়েছে খুলনায়।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা বলেন, খুলনার করোনা হাসপাতাল এখন ১৩০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। রোগীদের সেবায় এ জেলায় মোট ২০০ শয্যার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলার জানিয়ে বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য মানুষকে প্রতিনিয়ত সচেতন করা হচ্ছে। মাস্ক ছাড়া বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ