রবিবার ২০ জুন ২০২১
Online Edition

বেতনের আওতায় আসছেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা

স্পোর্টস রিপোর্টার : জাতীয় দলের ফুটবলারদের বেতনের আওতায় আনছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। তিনটি গ্রেডের মাধ্যমে খেলোয়াড়দের এই অর্থ প্রদান করা হবে বলে জানিয়েছেন সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বাফুফে ভবনে কাতার যেতে না পারা পাঁচ ফুটবলারের (আশরাফুল ইসলাম রানা, সাদ উদ্দিন, বিশ্বনাথ ঘোষ, মাহবুবুর আলম সুফিল ও টুটুল হোসেন বাদশা) সঙ্গে বৈঠক করেছেন বাফুফে সভাপতি। ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ ও এশিয়ান বাছাই পর্বের ম্যাচ খেলতে কাতার সফর করতে পারেননি জাতীয় দলের এই পাঁচ ফুটবলার। তাদের সাথে আলোচনায় নতুন এই পরিকল্পনার কথা জানান বাফুফে সভাপতি। বৈঠক শেষে ফুটবল ফেডারেশন প্রধান বলেন, যাদের ডেকেছিলাম জাতীয় দলে তারা আমার প্রধান খেলোয়াড়। কয়েকদিন ধরে আমি চিন্তা করেছি জাতীয় দলে যারা খেলেন তাদের জন্য একটা অর্থ বরাদ্দ করবো। যাতে তাদের আগ্রহ বাড়ে। ক্লাব থেকে যারা যেটা পায় পাক। একটা অ্যামাউন্ট আমরা তাদের দিবো।’ জাতীয় দলের ফুটবলাররা এত দিন ম্যাচ প্রতি ও ক্যাম্প চলাকালে ন্যূনতম পকেট মানি পেয়ে আসছিলেন। এবার সেটাকে বড় অঙ্কে ও মাসিক ভিত্তিতে রূপ দিতে চান বাফুফে সভাপতি। প্রাথমিক পর্যায়ে তিন ক্যাটাগরিতে ৩০ ফুটবলারকে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে আনা হবে বলে জানান তিনি। জাতীয় দলে ফুটবলারদের ভালো বেতন কাঠামোর দিকে আনার কারণ সম্পর্কে তার যুক্তি, ‘একটি বেতন কাঠামোর মধ্যে থাকলে সবাই জাতীয় দলে খেলার প্রতি আকৃষ্ট হবে, প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়বে। ইউরোপে ফুটবলাররা ক্লাবে অনেক অর্থ পায়। ফলে জাতীয় দলে সেই অর্থে সম্মানীর প্রয়োজন হয় না। আমাদের তো সেটা নেই।’ ক্যাটাগরি প্রসঙ্গে সভাপতি বলেছেন, ‘৩০ জন ফুটবলারের একটা তালিকা থাকবে। দুই গোলরক্ষকসহ ১৫ জন খেলোয়াড় পাবেন এক রকম অর্থ। তার পরের ১০ জন আরেক রকম বেতন। শেষ পাঁচজন পাবেন আরেক রকম বেতনের আওতায় পড়বে।’ বেতনভুক্ত ফুটবলারদের পারফরমেন্স আশানুরূপ না থাকলে এই তালিকায় পরিবর্তন আসবে বলে জানান দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ কর্তা। ‘যারা তালিকার উপরের দিকে থাকবে খারাপ খেললে তাদের জায়গায় নিচে থেকে খেলোয়াড় নিয়ে আসা হবে। তাহলে একটা প্রতিযোগিতা থাকবে। অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ থাকছে।’ ‘আমার মনে হয় এটা অনেক দরকার। মাঝে মাঝে খেলোয়াড়রা ২০ ভাগ ইনজুরি আক্রান্ত হলেই খেলা এড়িয়ে যায়। বেতন থাকলে সবাই খেলতে চাইবে।’ ৩০ জনের এই তালিকা বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের তৃতীয় ধাপ থেকে নির্ধারণ করা হবে বলে জানান তিনি। ‘জুনের ২৫ তারিখ থেকে লিগ শুরু হবে। সেখান থেকে বিদেশী টেকনিক্যাল টিম আর দুই-একজন নির্বাচকের মাধ্যমে তাদের বাছাই করা হবে। নয় মাসের মধ্যে তালিকা তৈরি হবে। এরমধ্যে বাছাই পর্বের খেলা রয়েছে। বছর ভিত্তিক এই বেতন দেয়া হবে। বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত জানিয়ে দেবো।’ যোগ করেন কাজী সালাউদ্দিন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ