ঢাকা, রোববার 20 June 2021, ৬ আষাঢ় ১৪২৮, ৮ জিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

ব্রিটেনে করোনার ভারতীয় স্ট্রেনের প্রকোপ বৃদ্ধি, বাড়ছে আতঙ্ক

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: ব্রিটেনে প্রকোপ বাড়াচ্ছে করোনার ‘ভারতীয় স্ট্রেন’। এই ভাইরাসের সবচেয়ে সংক্রামক স্ট্রেনগুলোর মধ্যে অন্যতম এই বি.১.৬১৭.২ এতটাই দ্রুত ছড়াচ্ছে সে দেশে যে কেন্ট, ব্রাজিল এবং দক্ষিণ আফ্রিকা স্ট্রেনের পর এটিকেও তাড়াতাড়ি ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন’-এর তালিকায় নথিভুক্ত করার উপদেশ দিচ্ছেন ব্রিটেনের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

বর্তমানে ইংল্যান্ডের উত্তরপূর্বাঞ্চল এবং লন্ডন শহরেই ভারতীয় স্ট্রেনের সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি। ইতিমধ্যেই কমপক্ষে ৫০০ জনের শরীরে এর সন্ধান মিলেছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন। 

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত ভারতীয় স্ট্রেনে সংক্রমিতের সংখ্যাটি ছিল ২০২। এই পরিস্থিতিতে সংক্রমিতদের চিহ্নিত করতে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে পরীক্ষা এবং ‘কনট্যাক্ট ট্রেসিং’-এর উপরেও জোর দেওয়া হচ্ছে বলে শুক্রবার জানিয়েছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। সঙ্গে ভারত থেকে কাউকে ব্রিটেনে আসতে দেওয়া নিয়ে কড়াকড়ি আরও বাড়ানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ব্রিটেনের বিশেষজ্ঞদের মতে, সে দেশে দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার জন্য দায়ী ছিল ‘কেন্ট ভ্যারিয়্যান্ট’। যার চেয়েও বেশি সংক্রামক ভারতীয় স্ট্রেন। প্রতিবেশী দেশ নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডেও ভারতীয় স্ট্রেনে সংক্রমিত সাত জনের হদিস মিলেছে সম্প্রতি।

অন্যদিকে, দু’দিন আগেই ব্রিটেনে জি-৭ বৈঠকে যোগ দিতে যাওয়া ভারতীয় দলের দুই সদস্য করোনা আক্রান্ত হন। যার জেরে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর-সহ গোটা ভারতীয় প্রতিনিধি দলকেই আইসোলেশনে যেতে হয়। 

এদিকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের টুইট করা একটি ছবিতে দেখা যায়, ব্রিটিশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী ডমিনিক রাবের সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকে মাস্ক ছাড়াই যোগ দিয়েছেন জয়শঙ্কর! আরও এক কর্মকর্তার মুখেও ছিল না মাস্ক, যা ঘিরে বিধিভঙের অভিযোগ উঠেছে। শুরু হয়েছে বিতর্ক। সূত্র: আনন্দবাজার

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ