শনিবার ০৮ মে ২০২১
Online Edition

প্রিমিয়ারের ক্লাবে ক্লাবে বাফুফের  ফিটনেস কোচ  

স্পোর্টস রিপোর্টার: নেপালের ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টের পর ইংলিশ কোচ জেমি ডে ও তার সহকারীরা ছুটিতে গেলেও ঢাকায় রয়ে গেছেন ফিটনেস কোচ ইভান রাজলগ। এ অস্ট্রেলিয়ানকে দিয়ে প্রিমিয়ার লিগের ১৩ ক্লাবের খেলোয়াড়দের ফিটনেস বৃদ্ধি এবং কিভাবে বিজ্ঞানসম্মত অনুশীলনে তাদের দিক্ষা দেয়া যায় সে কর্মসূচি শুরু করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এ নিয়ে এপ্রিলের মাঝামাঝিতে প্রিমিয়ার লিগের ১৩ ক্লাবকে চিঠি দিয়েছিল বাফুফে। গতকাল মঙ্গলবার সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবে গিয়েছিলেন। এর আগে শনিবার আবাহনী ক্লাব দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু করেন বাফুফের অস্ট্রেলিয়ান ফিটনেস কোচ। রোববার তারা গিয়েছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাবে। ক্লাবে ক্লাবে ফিটনেস কোচ যাওয়ার কারন সম্পর্কে বাফুফে জানিয়েছে ক্লাবগুলোর ম্যানেজার, প্রধান কোচ, সহকারী কোচ, টেকনিক্যাল স্টাফের সঙ্গে খেলোয়াড়দের ফিটনেস বৃদ্ধি ও অনুশীলন কিভাবে আরো বিজ্ঞানসম্মত করা যায় সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করছেন রাজলগ। ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ যে সব খেলোয়াড় জাতীয় দলের সঙ্গেও সম্পৃক্ত তাদের ব্যক্তিগত ডাটা প্রদান করেও বাফুফের ফিটনসে কোচকে সহযোগিতা করছে ক্লাবগুলো। বাফুফের সঙ্গে কাজ করা গ্লোবাল পারফরম্যান্স ইনটেলিজেন্স কোম্পানির প্রতিনিধি হিসেবে ক্লাবগুলো পরিদর্শন শুরু করেছেন রাজলগ। স্টেডিয়ামে বসে প্রিমিয়ার লিগের খেলা দেখার পাশাপাশি ক্লাবে ক্লাবে গিয়ে অনুশীলন দেখছেন বাফুফের ফিটনসে কোচ। এর মাধ্যমে তিনি সংগ্রহ করছেন খেলোয়ড়াদের ফিটনেস ও পারফরম্যান্সের সব তথ্য-উপাত্ত। রাজলগ যা পাঠিয়ে দিচ্ছেন ওই পারফরম্যান্স ইনটেলিজেন্স কোম্পানির কাছে। রাজলগের পাঠানো ডাটা, ছবি, ম্যাচ ও অনুশীলনের ভিডিও বিশ্লেষণ করে পারফরম্যান্স ইনটেলিজেন্স কোম্পানিটি প্রতি খেলোয়াড় সম্পর্কে ফিডব্যাক দিচ্ছে রাজলগ। যারা জাতীয় দলে আছেন, প্রাথমিক ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিলেন এবং যাদের দ্রুতই জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক পাওয়ার সম্ভাবনা আছে তাদের জন্য কর্মসূচি দারুণভাবে কাজ দেবে বলেই মনে করছে বাফুফে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ