শুক্রবার ১৪ মে ২০২১
Online Edition

ডিএনসিসির কোভিড হাসপাতালে তিন দিনে ১৩ জনের মৃত্যু

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: রাজধানীর মহাখালীর ডিএনসিসি মার্কেটে কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) সকাল ৮টা থেকে বুধবার (২১ এপ্রিল) সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চারজন রোগী মারা গেছেন। হাসপাতালটি উদ্বোধনের পর এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে মোট ১৩ জনের।

গত তিনদিনে ১২৪ রোগী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ৭৫ জন। এছাড়া এখন পর্যন্ত ৩শ জন করোনা রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন।

বুধবার (২১ এপ্রিল) দুপুরে ডিএনসিসি করোনা হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাসির উদ্দিন এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, হাসপাতালটি উদ্বোধন হলেও এখনো জনবল সংকট রয়েছে। এক হাজার শয্যার হাসপাতালে ২৫০টি শয্যা নিয়ে যাত্রা শুরু করেছি। পর্যাপ্ত জনবল না পাওয়ায় চিকিৎসাসেবা দিতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। চলতি মাসের মধ্যেই এক হাজার শয্যা চালু করতে চাই। কিন্তু জনবল না পেলে সেটা সম্ভব হবে না। তবে আজ আরও কিছু চিকিৎসক এবং নার্স কাজে যোগ দেবেন।

‘রাজধানীসহ সারাদেশের করোনা রোগী এই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা নিতে আসছেন। আমরা এখন পর্যন্ত কাউকে ফেরত পাঠাইনি। তবে এভাবে সব রোগী এখানে আসতে শুরু করলে সেবা দিতে হিমশিম খেতে হবে। ’

এর আগে রাজধানী মহাখালীর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) মার্কেট কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এরপর ১৯ এপ্রিল ( সোমবার) সকাল ৮টা থেকে এখানে রোগী ভর্তি শুরু হয়।

এক হাজার শয্যার ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতালে আইসিইউ শয্যা ২১২টি, এইচডিইউ শয্যা ২৫০টি, আইসোলেটেড কক্ষ ৫৩৮টি। সবক’টি শয্যার সঙ্গে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর ও সিলিন্ডার রয়েছে। তবে আইসিইউ ৫০টি, জরুরি ওয়ার্ডে ৫০টি এবং ১৫০টি সাধারণ শয্যা নিয়ে হাসপাতালে কার্যক্রম শুরু হয়। হাসপাতালটি পরিচালনা করবে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা। এই হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে ১৩০ চিকিৎসক, ২০০ নার্স, ৩০০ কর্মী ও ১০০ আর্মি থাকবে। এছাড়া ওষুধ, সরঞ্জামের ব্যবস্থা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ