সোমবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

খালেদা জিয়াসহ ফিরোজায় ৯জন করোনায় আক্রান্ত

স্টাফ রিপোর্টার : গুলশানে নিজের বাসা ‘ফিরোজায়’ গৃহবন্দি দলের চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন জানিয়ে বিএনপি আনুষ্ঠানিকভাবে বলেছে, তিনি ভালো আছেন, তার অবস্থা স্থিতিশীল। গতকাল বিকেলে গুলশানে চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে এক জরুরী সাংবাদিক সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন,দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে গত শনিবার। আইসিডিডিআর‘বিতে তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। আমরা আজকে যেটা পেয়েছি সেই টেস্ট রিপোর্টটা পজেটিভ। অর্থাৎ তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এখন তার সর্বশেষ যে পরিস্থিতি প্রফেসর ডা. এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক যারা আছেন, তাদের তত্ত্বাবধায়নে ইতিমধ্যে চিকিৎসা শুরু হয়েছে। তিনি এখন স্টেবল আছেন, ভালো আছেন।
এর আগে গতকাল সকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের তরফ থেকে খালেদা জিয়ার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর জানানো হলেও কিছু বলছিল না তার পরিবার ও বিএনপি। এমনকি শনিবার তার করোনার নমুনা নেয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে তা নাকচ করে দেয় তার প্রেস উইং। ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. মামুনের বরাত দিয়ে প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, করোনা পরীক্ষার জন্য খালেদা জিয়া নমুনা নেননি।
খালেদা জিয়ার অবস্থা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, তার কোনো টেম্পারেচার নেই, অন্য কোনো উপসর্গও তার নেই। তার চিকিৎসা ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। আমরা দেশবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই, তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক যারা আছেন তারা দেশের অত্যন্ত বরেণ্য চিকিৎসক, তাদের তত্ত্বাবধানে আছেন এবং তিনি ভালো আছেন। তিনি জানান, তার চিকিৎসকদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। অর্থাৎ যদি কোনো প্রয়োজন হয় তখন সেই ভাবেই ফারদার ট্রিটমেন্টের ব্যবস্থা নেয়া হবে।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমি আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীকে জানাচ্ছি যে, এই ব্যাধি এখন যেভাবে সারা দেশে একটা ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে সেই প্রেক্ষিতে দেশবাসীকে আমরা আহবান জানাব, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াও আহবান জানিয়েছেন যে, তার জন্য, তার মুক্তির জন্য সবাই যেন দোয়া করেন। বিশেষ করে আমাদের দলের সকল স্তরের নেতা-কর্মীদের আহবান থাকবে যে, তারা দেশনেত্রীর রোগমুক্তির জন্য পরম করুনাময় আল্লাহ তালার কাছে দোয়া চাইবে এবং সমস্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে তারা যেন দোয়া করেন। আমাদের অনুরোধ থাকবে যে, স্থানীয় মসজিদে তার জন্য দোয়া করবেন।
খালেদা জিয়ার সাথে থাকা গৃহকর্মী ফাতেমাসহ অন্যদের সম্পর্কে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ওখানে যারা আছেন তাদের সম্পর্কে আমি বলতে পারবো না। আমরা শুধুমাত্র উনারটাই জেনেছি। যেটা আমি সুনিশ্চিতভাবে বলেছি।
খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ডা. মামুন বলেছেন যে, টেস্ট করা হয়নি এরকম প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তিনি হয়ত জানতেন না। এই বিষয়ে আমি বলতে পারবো না। এটা উনার কাছে জানতে চান। আই ক্যান নট গিবেন আনসার। আমার যেটা দায়িত্ব আপনাদেরকে জানানোর সেটা আমি জানিয়েছি।
এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় সারাদেশে বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী ও শুভানুধ্যায়ীদেরকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মসজিদ, অন্যান্য উপাসনালয় এবং যার যার অবস্থান থেকে দোয়া মাহফিল, কোরআন খতম ও অন্যান্য ধর্মমতে প্রার্থনা অনুষ্ঠান করার জন্য বিএনপির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। গতকাল রোববার দলের এক বিজ্ঞপ্তিতে এই আহবান জানানো হয়েছে।
জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার গৃহকর্মী ফাতেমাসহ তার গুলশানের বাসভবন ‘ফিরোজা’র ৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। গতকাল রাজধানীর গুলশানের ওই বাসভবনে খালেদা জিয়াকে দেখতে এসে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. মামুন। তিনি আরও জানান, খালেদা জিয়ার কোনো করোনার উপসর্গ নেই। কিন্তু তার গৃহকর্মী ফাতেমাসহ ৮ জন করোনা আক্রান্ত হওয়ায় খালেদা জিয়ার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ব্যক্তিগত নিরাপত্তার কারণে প্রথমদিকে তার করোনা আক্রান্তের বিষয়টি গোপন রাখা হয়েছিল। ডা. মামুন বলেন, খালেদা জিয়ার করোনার কোনো উপসর্গ না থাকলেও পরবর্তী কিছু ঘটলে তার চিকিৎসা রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার জন্য একটা কেবিনের বন্দোবস্ত করে রাখা হয়েছে।
ডা. মামুন বলেন, প্রথমে ওই বাসভবনের কেয়ারটেকারদের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হলে তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর গৃহকর্মীর (ফাতেমা) নমুনা পরীক্ষা করা হলে তারও করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তারপরই মূলত ম্যাডামের করোনার নমুনা পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। শনিবার অন্যান্য শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার সঙ্গে করোনার নমুনাও পরীক্ষা করা হয়। এতে তার পজিটিভ রিপোর্ট আসে।
পুরো বাসভবনকে হাসপাতালের মতো করে রাখা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, দুই-একজনের করোনার উপসর্গ থাকলেও ম্যাডামের কোনো উপসর্গ নেই। তিনি সুস্থ আছেন, ভালো আছেন। এখন পর্যন্ত তার শারীরিক কোনো জটিলতা দেখা যায়নি। ফলে আমাদের আপাতত চিন্তা, বাসায় রেখে তাকে চিকিৎসা করানো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ