সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

সাকিব-মুস্তাফিজকে ছাড়াই শ্রীলংকায় ভালো করতে চাই ----মুমিনুল

 

স্পোর্টস রিপোর্টার : শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে আজ দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। তবে এ সফরে আইপিএল খেলতে যাওয়া সাকিব আর মুস্তাফিজকে পাচ্ছেন না অধিনায়ক মুমিনুল। অবশ্য মুমিনুল হক টেস্টে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়ার পর নিষেধাজ্ঞার কারণে খেলতে পারেননি সাকিব। উইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে সাকিবকে পেয়ে বেশ আগ্রহী ছিলেন মুমিনুল। তবে চোটের কারণে খেলতে পারেননি সাকিব। মুস্তাফিজ থাকলেও সুবিধা করতে পারেননি। ব্যক্তিগত কারণে ভারত সিরিজে খেলতে পারেননি তামিম ইকবালও। ফলে দুই ম্যাচেই হারতে হয় বাংলাদেশ দলকে। এবার শ্রীলংকা সফর। আইপিএলের কারণে দলে নেই সাকিব-মুস্তাফিজ। অবশ্য এনিয়ে ভাবছেন না টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক। গতকাল মিরপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল বলেন,‘আমার কাছে মনে হয় না সাকিব ভাই বা মুস্তাফিজ না থাকলে দলের ফলাফল হবে না। দেখুন খেলোয়াড় তো আরও আছে। ওনাদের তো ১০-১২টা হাত না। বাকিদেরও ১০-১২টা হাত না। আমার কাছে মনে হয় না এর কোনো প্রভাব পড়ে। আমরা হয়তো দলগতভাবে খেলতে পারছি না এই কারণে ইতিবাচক ফলাফল হচ্ছে না। আর কোন কিছু না। 

এটা নির্ভর করবে আপনি কেমন ফলাফল করছেন। ফলাফল যদি ভালো হয় তাহলে আমি বলতে পারব। আপনি যেটা বলেছেন যে সাকিব ভাই নেই, হয়তো এমনো সিরিজ হতে পারে যেখানে ২-৩ জন সিনিয়র ক্রিকেটার থাকবে না। এর মধ্যে যারা খেলবে তাদের জন্য আমি বারবারই কথাটা বলে আসছি, তাদের জন্য ভালো একটা সুযোগ। তাই এই সময়ে যারা খেলবে এটা তো তাদের জন্য ভালো সুযোগ। আমাদের মনে হয় এভাবেই প্রস্তুতি নেয়াটা উত্তম।’ সবশেষ শ্রীলঙ্কা সফরে একটি টেস্ট জিতেছিল মুশফিকুর রহীমের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ। ফলে এবারও সেই ধারাবাহিকতার ধরে রাখার একটা প্রত্যাশা থাকবে মুমিনুল হকের দলের ওপর। তবে আশাবাদী টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। তার মতে শ্রীলঙ্কায় টেস্ট জেতা সম্ভব। তবে এর জন্য পূরণ করতে হবে কিছু শর্ত। যার মধ্যে সবচেয়ে বড় হলো, সেশন বাই সেশন ধরে আগানো। পাঁচদিনের ম্যাচের প্রতিটি সেশন নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে জয় সম্ভব বলে মনে করেন মুমিনুল। টেস্ট অধিনায়ক বলেছেন,‘আগে কী হয়েছে তা অতীত আর ভবিষ্যত কী হবে তা কেউ বলতে পারবে না। 

আমরা যে পাঁচদিন টেস্ট খেলব, প্রত্যেকটা দিন, প্রত্যেকটা সেশন যদি জিততে পারি, ভালো খেলতে পারি তাহলে ফলাফল আমাদের দিকে আসবে। যদি না পারি তাহলে আমাদের বিপক্ষে চলে যাবে। নির্দিষ্ট দিন অনুযায়ী আমরা যদি ভালো প্রস্তুতি নিয়ে খেলতে পারি, তাহলে জয় হতে পারে। শ্রীলঙ্কা সবসময়ই তাদের মাটিতে শক্তিশালী দল। তো আমাদের জন্য কাজটা সহজ হবে না, অনেক চ্যালেঞ্জিং হবে। আমরা যেই অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছি, সেখান থেকে জয়ী হতে হলে ঐ চ্যালেঞ্জটা নিতে হবে এবং চ্যালেঞ্জটা পার হয়ে আমাদের ভালো রেজাল্ট করতে হবে।’ সাকিব বা মোস্তাফিজহীনতা বাংলাদেশের টেস্ট জয়ে কোন প্রভাব ফেলেনি। যে বিষয়টি প্রভাব ফেলেছে সেটি হল, একটি দল হয়ে উঠতে না পাারা।

 কোন ম্যাচেই একটি দল হয়ে খেলতে পারেননি সেকারণেই তার নেতৃত্বে এখনও লাল সবুজের দল কোন জয়ের মুখ দেখেনি বলেই মত তার। তিনি বলেন,‘আমার কাছে মনে হয় না সাকিব ভাই, মোস্তাফিজ না থাকলে দলের ফলাফল হবে না। দেখেন খেলোয়াড় তো আরও আছে। ওনাদের তো ১০-১২টা হাত না। বাকিদেরও ১০-১২টা হাত না। আমার কাছে মনে হয় না এর কোনো প্রভাব পরে। আমরা হয়তো দলগত ভাবে খেলতে পারছি না এই কারণে ইতিবাচক ফলাফল হচ্ছে না। আর কোন কিছু না।’ দলের প্রস্তুতি নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন,‘মন থেকে যদি বলেন, এখনকার যে পরিস্থিতি।

 বিগত এক-দেড় বছরের যে পরিস্থিতি... আপনারা ভালোই জানেন আমার চেয়ে। করোনাকালে আপনি হয়তো খুব বেশি প্রস্তুতি নিতে পারবেন না। কিন্তু যেভাবে দরকার ওইভাবে আমার মনে হয় আমরা নিতে পারছি। বিশেষ করে যারা ওয়ানডে খেলে ওদের জন্য একটু কঠিন, কিন্তু যারা শুধু টেস্ট খেলে ওরা দুইটা ৪ দিনের ম্যাচ খেলেছে, লাল বলে অনুশীলন করেছে। যারা প্রতিনিয়ত খেলে ওদের জন্য ভালো প্রস্তুতি হয়েছে।’ শ্রীলংকা পৌঁছে তিন দিনের কোয়ারেনটাইন শেষে ১৫-১৬ এপ্রিল কোয়ারেন্টাইনকালীন অনুশীলনে ঘাম ঝড়াবে বাংলাদেশ দল। ১৭-১৮ এপ্রিল অুনষ্ঠিত হবে নিজেদের মধ্যকার প্রস্তুতি ম্যাচ। এরপর ১৯ ও ২০ এপ্রিল ক্যান্ডির পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে সিরিজপূর্ব অনুশীলন করবে ডমিঙ্গো শিষ্যরা। একই ভেন্যুতে ২১-২৫ এপ্রিল গড়াবে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট ও২৯ এপ্রিল-৩ মে অুনষ্ঠিত দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ