শুক্রবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

দেশে একদিনে করোনায় আক্রান্ত সাত হাজারের বেশি

স্টাফ রিপোর্টার : দেশে করোনা ভাইরাসে একদিনে সাত হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি মৃত্যু হয়েছে ৬৩ জনের। গতকাল শুক্রবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৪৬২ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৬ লাখ ৭৩ হাজার ৫৯৪ জনে দাঁড়িয়েছে। গত এক দিনে মৃত ৬৩ জনকে নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে মোট ৯ হাজার ৫৮৪ জনের মৃত্যু হল।
এর আগে বৃহস্পতিবার ৭৪ জন কোভিড-১৯ রোগীর মৃত্যুর খবর দিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, যা দেশে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যায় সর্বাধিক। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৫১১ জন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী। নতুনদের নিয়ে মোট সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৫ লাখ ৬৮ হাজার ৫৪১ জনে।
দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২৯ মার্চ ছয় লাখ ছাড়িয়েছে। এরপর মাত্র এক সপ্তাহে সেই তালিকায় যোগ হয়েছে আরও অর্ধলক্ষ নাম। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে বাড়তে বুধবার দেশে রেকর্ড ৭ হাজার ৬২৬ জন নতুন রোগী শনাক্তের খবর দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবে পরের দিনই তা প্রায় হাজারখানেক কমে যায়।
বিশ্বে শনাক্ত কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা ইতোমধ্যে ১৩ কোটি ৪০ লাখ পেরিয়েছে; মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ২৯ লাখ ৪ হাজার। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে মোট ২৪৩টি ল্যাবে ৩১ হাজার ৬৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার ৪১২টি নমুনা। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ৫৭ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬২ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৪ দশমিক ৪০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪২ শতাংশ।
সরকারি ব্যবস্থাপনায় এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৭ লাখ ৫ হাজার ২৩৪টি। আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হয়েছে ১২ লাখ ৪২ হাজার ১৭৮টি।
গত এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ৪৩ জন পুরুষ আর নারী ২০ জন। তাদের সবার মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে। মৃতদের মধ্যে ৩৬ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, ১৬ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছর, ৪ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৫ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর এবং ২ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছিল।
৬২ মৃত্যুর মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৪২ জন, চট্টগ্রামের ১০ জন, রাজশাহীর ২ জন, খুলনার ৩ জন, বরিশালের ৪ জন, সিলেটের ১ জন এবং ১ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। করোনা ভাইরাসে দেশে মোট মৃত ৯ হাজার ৫৮৪ জনের মধ্যে ৭ হাজার ১৭৩ জন পুরুষ ও ২ হাজার ৪১১ জন নারী।
এদের মধ্যে ৫ হাজার ৩৮৫ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ২ হাজার ৩৫৬ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, ১ হাজার ৬৯ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ৪৭৮ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, ১৮৭ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে,৭০ জনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং ৩৯ জনের বয়স ছিল ১০ বছরের কম।
মোট মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ৫ হাজার ৫২৪ জন ঢাকা বিভাগের, ১ হাজার ৭১৯ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ৫২২ জন রাজশাহী বিভাগের, ৬০৭ জন খুলনা বিভাগের, ২৮৮ জন বরিশাল বিভাগের, ৩৩৫ জন সিলেট বিভাগের, ৩৮১ জন রংপুর বিভাগের এবং ২০৮ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।
এদিকে ভারতে করোনা সংক্রমণে রেকর্ডের পর বৃহস্পতিবার মুখ্য মন্ত্রীদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মহামারি মোকাবিলায় ব্যাপক হারে করোনা পরীক্ষা এবং টিকা দেয়াকে গুরুত্ব দিয়েছেন তিনি।
দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন জানিয়েছেন, ভারতের কাছে এখন ৪ কোটি ৩০ লাখের বেশি করোনা টিকার ডোজ রয়েছে। দেশটিতে এ পর্যন্ত এক কোটি সাড়ে ৩০ লাখ মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছে এক লাখ ৬৭ হাজারের বেশি।  আগামীকাল থেকে ২০শে এপ্রিল পর্যন্ত দেশটির বেঙ্গালুরুসহ ছয়টি শহরে রাত্রীকালীন কারফিউ জারি হয়েছে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ