শনিবার ০৮ মে ২০২১
Online Edition

ফেনীতে উপজেলা আমীরসহ ৮ নেতাকর্মী গ্রেফতার নিন্দা ও মুক্তি দাবি করেছেন জেলা জামায়াত

ফেনী সংবাদদাতা : ফেনী সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়নের শ্রীপুর থেকে ফেনী সদর উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীরসহ ৮ নেতাকর্মীকে গতকাল বুধবার দুপুরে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় আওয়ামীলীগ সন্ত্রাসীরা। গতকাল বুধবার বিকালে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।  
দলীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল বুধবার সকালে জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীরা ফেনী সদর উপজেলার কাজীরবাগ ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামে আসন্ন পবিত্র মাহে রমযান উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করার জন্য আলোচনা সভা করছিল। এ ধরনের একটি সভা থেকে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার ধর্মীয় ও সাংবিধানিক অধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এর মাধ্যমে সরকারের অগণতান্ত্রিক মানসিকতার বহি:প্রকাশ ঘটেছে। ওই গ্রামের জামায়াত নেতা রেজাউল হক মাষ্টারের বাড়িতে ছিলেন। ওই বাড়িতে স্থানীয় আওয়ামীলীগ-যুবলীগ সন্ত্রাসীরা জামায়াত নেতাকর্মীদেরকে  ঘেরাও করে রাখে। পরে খবর পেয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম গিয়ে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যায়। আটককৃতরা হলেন ফেনী সদর উপজেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা আবদুর রহিম, কাজিরবাগ ইউনিয়ন আমীর মাওলানা সাইফুল ইসলাম, জামায়াত নেতা সাহাব উদ্দিন মৃধা, দেলোয়ার হোসেন, ওমর ফারুক, জয়নাল আবেদীন, এরফান উদ্দিন ও রহমত উল্যাহ।
জামায়াতের দাবি, কাজিরবাগ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কাজী বুলবুল আহমেদ সোহাগের নেতৃত্বে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা বিনা উসকানিতে জামায়াত নেতাকর্মীদেরকে ঘেরাও করে অবরুদ্ধ করে রাখে। যা দেশে একদলীয় বাকশাল কায়েম ও অগণতান্ত্রিক মানসিকতার বহি:প্রকাশ।      
ফেনী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি এএনএম নুরুজ্জামান জামায়াতের ৮ জন নেতাকর্মী গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাদেরকে বিশেষ ক্ষমতা আইনে নাশকতার পরিকল্পনার মামলায় আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
ফেনী জেলা জামায়াতে ইসলামীর নিন্দা ও মুক্তি দাবি : ফেনীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ফেনী সদর উপজেলা আমীরসহ ৮ জন নেতাকর্মীকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ফেনী জেলা জামায়াতে ইসলামীর আমীর একেএম শামছুদ্দীন ও ফেনী জেলা জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি মুফতি আবদুল হান্নান। নেতৃদ্বয় অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত সকল নেতাকর্মীদের নি:শর্ত মুক্তি দাবি করেন। গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কোনো মামলায় বা কোনো ওয়ারেন্ট ছিল না। সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ