সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
Online Edition

সিরিজে টিকে থাকার ম্যাচ টাইগারদের

স্পোর্টস রিপোর্টার: নিউজিল্যান্ড সফরের শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। তিন ম্যাচে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে বড় হার দিয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ। ডানেডিনে প্রথম ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দাঁড়াতেই পারেনি টাইগাররা। মাত্র ১৩১ রানে গুটিয়ে ৮ উইকেটে ম্যাচ হারা বাংলাদেশ সিরিজে ১-০ তে পিছিয়ে আছে। ফলে সিরিজে টিকে থাকতে দ্বিতীয় ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই বাংলাদেশের সামনে। কারণ দ্বিতীয় ম্যাচে হারলেই এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জিতবে নিউজিল্যান্ড। ক্রাইস্টচার্চের হাগলি ওভাল মাঠে হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচটি। বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় শুরু হবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচ। সিরিজ বাঁচাতে আজ দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশকে ঘুরে দাঁড়াতেই হবে। তাই ক্রাইস্টচার্চে ম্যাচে ফিরতে বেশ বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ দল। তবে ম্যাচে ফিরতে সবার আগে প্রয়োজন রানে ফেরা। গত প্রায় তিন বছর পর দেড়শ রানের নিচে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। আর তাই তো টাইগার অধিনায়ক তামিম বলেন,‘আমার মনে হয় অনেক বেশি আমরা উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছি। কোনো সন্দেহ নেই তারা দারুণ বোলিং করেছে। কিন্তু আমার মনে হয় আমরা কিছু বাজে শট খেলেছি এবং আমরা কেবল নিজেদেরকেই দোষ দিতে পারি। আমরা আমাদের ব্যাটিং নিয়ে অনেক গর্ব করি। কিন্তু প্রথম ম্যাচে তা কাজ করেনি। এই উইকেটে ১৩০ (১৩১) কোনোভাবেই যথেষ্ট ছিল না। আমরা আশা করছি ভুলগুলো খুঁজে বের করার এবং সেগুলো পরের ম্যাচে না করার। কারণ যেমনটা আমি বললাম, আমরা আমাদের ব্যাটিং নিয়ে অনেক গর্ববোধ করি।’ দ্বিতীয় ম্যাচে ম্যাচের আগে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন জানালেন, দ্বিতীয় ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়াতে চায় বাংলাদেশ। সংবাদমাধ্যমকে মিঠুন বলেছেন, ‘প্রথমত একটি বোলিং ইউনিট ভালো করতে হলে অবশ্যই ব্যাটসম্যানদের একটা টার্গেট দিতে হবে। গত ম্যাচে যে রানের টার্গেটটা ছিল ওদের (নিউজিল্যান্ড) ওইরকম কোন চাপ ছিল না। তারা নেমেই সব ধরণের শট খেলতে পেরেছে। কারণ তারা জানে দুই-তিনটি উইকেট পড়লেও এই রান তাড়া করতে পারবে, যে কারণে তারা ভয়হীন ক্রিকেট খেলেছে। আমি মনে করি অন্যবারের চেয়ে আমাদের এবারের বোলিং অ্যাটাক যথেষ্ট ভালো। আমরা সবাই ওদের উপর ভরসা করতে পারি। ব্যাটসম্যানরা যদি একটা বড় টোটাল দাঁড় করাতে পারি তাহলে ওরা কতটুকু ক্যাপাবল সেটি প্রমাণ করতে পারবে। আগের ম্যাচের সবকিছু ভুলে গিয়ে সামনের ম্যাচে সেরাটা দেওয়ার। অন্তত আমাদের ম্যাচ জেতার জন্য যতটুকু করা দরকার এবং বোলাররা যাতে একটু নির্ভার থাকতে পারে অন্তত এমন একটা টার্গেট দেওয়ার।' তবে আজ বাংলাদেশ দলের ঘুরে দাঁড়ানোর কাজটি খুব কঠিন হতে পারে। কারন প্রথম ম্যাচে বাজেভাবে হেরেছে বাংলাদেশ দল। প্রথম ম্যাচে হেবে বাংলাদেশ দল যতটা চাপে আছে ঠিক ততটাই ফুরফুরে মেজাজে আছে স্বাগতিকরা। আজ দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে দলটি আজই সিরিজ জয়ের কাজটা সেরে ফেলতে চাইবে। দ্বিতীয় ম্যাচের আগে কিউইদের প্রধান কোচ গ্যারি স্টিড জানান, যেকোনো সময় দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারে তামিম ইকবালের দল। তবে দ্বিতীয় ম্যাচটি জিতে সিরিজ নিজেদের করে নেয়ার পক্ষেই কিউই কোচ। স্টিড বলেছেন, ‘প্রথম ম্যাচে আমরা দারুণ খেলেছি। শুরুটা ভালো করা সবসময়ই গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে আমাদের বোলিং পারফরম্যান্স যেমন ছিল। পরে ব্যাট হাতেও আমরা একটা বার্তা দিতে পেরেছি। আমরা আশা করব ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে। একইভাবে প্রস্তুত থাকব, বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়াতে পারে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ