মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
Online Edition

রিট কোনো অবস্থাতেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না - ডা. শফিকুর রহমান

পবিত্র কুরআনের ২৬টি আয়াত বাতিল চেয়ে ভারতের উচ্চ আদালতে দায়েরকৃত রিট প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ডা. শফিকুর রহমান বিবৃতি দিয়েছেন। 

গতকাল রোববার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, পবিত্র কুরআনুল কারীম আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে মানবজাতির জন্য সর্বশেষ জীবন বিধান, যা পূর্ণাঙ্গ এবং সকল প্রকার দোষ-ত্রুটি মুক্ত। স্বয়ং আল্লাহ তায়ালাই সে ঘোষণা দিয়েছেন। দেড় হাজার বছর ধরে পবিত্র কুরআন তার প্রতিটি হরফ এবং হরকতসহ সম্পূর্ণ সংরক্ষিত অবস্থায় আছে। কুরআন সম্পর্কে রিটকারীর বক্তব্য চরম ধৃষ্টতামূলক। সে শুধু আল্লাহর কুরআনকেই আঘাত করেনি, বরং রাসূলে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ইন্তিকালের পর যে মহান ৪ জন খলীফা মুসলিম মিল্লাতের অভিভাবক ও শাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন, তারা সাহাবাগণের মধ্যে অগ্রবর্তী ছিলেন। তারা জীবিত অবস্থায় জান্নাতের সুসংবাদ প্রাপ্ত ছিলেন। তারা সকলের সম্মান, মর্যাদা ও শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন। রিটকারী ৪ জন খলীফার মধ্যে ৩ জনেরই চরিত্র হনন করেছেন। তার সমুদয় অপপ্রয়াসের আমরা তীব্র নিন্দা জানাই। তার এই রিট কোনো অবস্থাতেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। 

তিনি বলেন, আমরা দেখতে চাই, রিট আবেদনকারী তার ভুল বুঝতে সমর্থ হবেন এবং রিট প্রত্যাহার করে নিবেন। সেই সাথে ভারত সরকার এ বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে সারা বিশ্বের মুসলমানগণ প্রত্যাশা করেন।

গাজীপুরে ইয়াতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ

গাজীপুর সংবাদদাতা: বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর  ডা. শফিকুর রহমান বলেছেন, আগামী ২৬ মার্চ আমরা স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তি উদযাপন করতে যাচ্ছি। একটি জাতির জন্য ৫০ বছর মোটেও কম নয়। বিশেষ করে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর থাকা সত্ত্বেও আমরা সেই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে পারিনি। রাজনৈতিক বিরোধ ও বিভক্তি আমাদের অগ্রগতি ও উন্নয়নের পথে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেশের সমৃদ্ধির স্বার্থে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হতেই হবে। আসুন আমরা মৌলিক ইস্যুতে একমত হয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাই।

প্রধান অতিথি আরো বলেন, ইয়াতিম শিশুরা ফুলবাগানের মতো পবিত্র। তারা রাসূল (সা:) এর সাথে জান্নাতে একত্রে থাকবে। ইয়াতিমদের সেবা করে আমরাও পরকালে মুক্তি পেতে চাই।

স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তি উপলক্ষে গাজীপুর জেলা জামায়াত আয়োজিত ইয়াতিম শিক্ষার্থীদের মাঝে খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি এসময় ইয়াতিম শিশুদের পাশে কিছু সময় কাটান এবং তাদের টেবিলে নিজ হাতে দুপুরের খাবার পরিবেশন করেন।

  বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার অন্যতম সদস্য ও গাজীপুর জেলা আমীর ডক্টর আবু তাসনিমের সভাপতিত্বে রোববার বাদ যোহর এক অনুষ্ঠানে জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার একটি ইয়াতিমখানায় অর্শতাধিক  ইয়াতিম শিশুর মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়। জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মাওলানা সেফাউল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য গাজীপুর মহানগর জামায়াতের আমীর অধ্যক্ষ এস এম সানাউল্লাহ, গাজীপুর জেলা জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি মুহাম্মদ হারুনুর রশীদ, জামায়াত নেতা মুখলেছুর রহমান খান ও মাহমুদুল হাসান 

প্রধান অতিথি ডা. শফিকুর রহমান ইয়াতিম শিশুদের থাকা-খাওয়ার স্থান ঘুরে ঘুরে দেখেন। এসময় তিনি ইয়াতিমখানার সুপারসহ শিক্ষকদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং ইয়াতিমদের সেবা দেয়ার জন্য তাদেরকে ধন্যবাদ দেন। একই সাথে ইয়াতিমখানার সার্বিক মানোন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শ দেন। ইয়াতিম শিশুরা আমীরে জামায়াতকে তাদের পাশে পেয়ে উচ্ছাস প্রকাশ করে।

 প্রধান অতিথি বলেন,ইয়াতিম শিশুরা আল্লাহর রাসূলের সাথে জান্নাতে থাকবে। ইয়াতিমের সেবা করতে পারা সৌভাগ্যের বিষয়। আমাদের উচিত বাবা-মায়ের ভালোবাসা নিয়ে ইয়াতিমদের পাশে দাঁড়ানো। 

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতার ৫০ বর্ষপূর্তি উদযাপন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ইয়াতিমকে খাবার প্রদানও এসব কর্মসূচির অন্যতম।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ