সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১
Online Edition

ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ ৬ মে থেকে শুরু

স্পোর্টস রিপোর্টার : আগামী ৬ মে থেকে মাঠে গড়াচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ। টি টোয়েন্টি ফরমেটে এবারের ক্রিকেট লিগে অংশ নেবে ১২টি দল। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) প্রতিদিন দুটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। আপাতত দুই উইন্ডোতে টুর্নামেন্ট পরিচালনার কথা ভাবছে সিসিডিএম। অনুমিতভাবেই টুর্নামেন্টে সুপার লিগ ও রেলিগেশন লিগ থাকছে। গত বছরের মার্চের ১৫ তারিখ মাঠে গড়িয়েছিল ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটের ২০১৯-২০২০ মৌসুমের খেলা। তবে প্রথম রাউন্ডের যে ম্যাচ হয়েছিল তা বাতিল করেছে ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিশ (সিসিডিএম)। ফলে সম্পূর্ণ নতুন রূপে চালু হতে যাচ্ছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ। গতকাল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডে সিসিডিএম এর সভাশেষে চেয়ারম্যান কাজী এনাম আহমেদ একথা জানান। তিনি বলেন, ‘আমাদের সিসিডিএম এর সভা ছিল। গতবছর আমরা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ চালিয়ে যেতে পারিনি। আমরা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগটাকে আবার চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এবং সেটার উইন্ডো যেটা পাচ্ছি মে মাসের ৬ তারিখে। সে সময়ে আমরা লিগটা শুরু করতে পারব। খুবই কঠিন পরিস্থিতি কারণ আমাদের হাতে খুব অল্প সময় আছে। আমরা দুইটা উইন্ডো তে ৬ দিন এবং আপাতত ১৫ দিন পেয়েছি, হয়ত আরও তিন দিন হয়ত যোগ করা যাবে। সেটা দিয়ে আমোদের টুর্নামেন্ট শুরু করতে হবে। এত সময় কম সময় পাওয়া গিয়েছে! সকল ক্লাবের প্রতিনিধির সঙ্গে আমরা আলাপ করেছি এবং একমত হতে পেরেছি যে আমাদের এই লিগটাকে যেটা করছি এটাকে টি টোয়েন্টি ফর্মেটে করতে হবে।’ কাজী এনাম আরো যোগ করে বলেন,‘গত বছর যে একটা ম্যাচ হয়েছিল এটা গতবছর লিগেরই ধারাকাহিকতা এবং সেই একটা ম্যাচ আমরা পরিত্যক্ত/বাতিল (অ্যাবানড্যান্ট) করে দিচ্ছি। ওটা বাতিল করে আবার এটা চালু করছি এবং নতুন করে চালু করছি। কিন্তু গত বছর যেহেতু সব প্লেয়ার সাইনড ছিল, সব টিমের সাথে। সে সকল প্লেয়ার সে দলেই খেলবে। ক্লাবের দিকটাও আমাদের দেখতে হবে। যেহেতু বেশিরভাগ ক্লাব ইতোমধ্যেই ৩০-৪০ পেমেন্ট দিয়ে দিয়েছে। যেহেতু সেটা হয়েছে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সকল প্লেয়ার যে ক্লাবের সঙ্গে ছিল সে ক্লাবেই থাকবে। সেভাবেই আমরা লিগটা করব। এবং এটা সম্পুর্ণ একটা লিগ হবে। এই লিগটার মধ্যে সুপার লিগ থাকবে, রেলিগেশনও থাকবে। মিরপুর আছে, বিকেএসপির দুইটা মাঠ। সেখানে মূলত দিনে ছয়টা ম্যাচ হবে। যেহেতু টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দিনে একেক মাঠে দুইটা করে ম্যাচ হবে। কাজেই সব দলের প্রতিদিন খেলা থাকছে। সভায় সিদ্ধান্তই হয়েছে। যথারীতি প্রিমিয়ার লিগ হবে আগেরবারের দল অনুযায়ী। অর্থাৎ গত বছরের মার্চে এক ম্যাচ হয়ে যাওয়া লিগে যে ক্রিকেটার যে দলে ছিলেন, তারা সেই দলেই খেলবেন। এবার আর নতুন করে দল বদল হবে না। আর লিগ ৫০ ওভারের বদলে হবে ২০ ওভারের ফরম্যাটে মানে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। সুপার লিগ, রেলিগেশন লিগ সবই হবে। আগামী ৬ মে থেকে শুরু হয়ে প্রথম পর্ব ১০ মে পর্যন্ত চলবে খেলা। এই ৫ দিন খেলা হওয়ার পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। এর সঙ্গে ঈদের জন্য ২৫ দিন বন্ধ থাকবে লিগের সব খেলা। তারপর আবার লিগ শুরু হবে ৩১ মে, যা চলবে ১৭ জুন পর্যন্ত। সিসিডিএস সদস্য সচিব আলী হোসেন জানিয়েছেন, প্রতিদিন অংশগ্রহণকারী ১২টি দলই মাঠে নামবে। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম ও সাভারের বিকেএসপির দুইটি মাঠে প্রতিদিন মোট ২টি করে হবে ৬টি ম্যাচ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ