সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১
Online Edition

সরকার নিজেদের কুকীর্তি-অপকীর্তি ঢাকতে দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানের খেতাব কেড়ে নিচ্ছে

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ডক্টর এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-এর উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের খেতাব বাতিলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : সরকার ‘ভুঁয়া’ মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করছে বলে অভিযোগ করেছেন রুহুল কবির রিজভী। গতকাল সোমবার দুপুরে এক মানববন্ধনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এই অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, আজকে যারা ক্ষমতায় আছেন তারা মুক্তিযুদ্ধ করেননি, তারা মুক্তিযুদ্ধ দেখেননি- কিভাবে রনাঙ্গনে মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে। সেজন্য তারা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের খেতাব কেড়ে নিতে চায়, তাদেরকে অপমানিত করতে চায়। তারা ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার তালিকা তৈরি করছেন আওয়ামী লীগের লোকজনদের দিয়ে।
রিজভী বলেন, দেশের একজন নামকরা মুক্তিযোদ্ধা বীর বিক্রম মেজর হাফিজ উদ্দিন আহমেদ তিনি বলেছেন, একাত্তরে ৮০ হাজার মুক্তিযোদ্ধা লড়াই করেছে। আর আওয়্মাী লীগ লিস্ট করছে আড়াই লাখ। কারণ ওদের আত্বীয়-স্বজন নাতি-নাতনী যাদের একাত্তর সালে জন্ম হয়নি তাদেরও তালিকা করছেন এই আওয়ামী লীগ সরকার।
আল-জাজিরার প্রতিবেদনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, এই প্রতিবেদন দেখলে ঘা শিহরিয়ে উঠে। রাষ্ট্রীয় ক্ষমা করা হয়েছে। এটা আইন মন্ত্রী বলছেন, আমি জানি না, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলছেন আমি জানি না। গোপনে-অন্ধকারে কত দুরাচার করছে এই সরকার, কত ধরনের অপকীর্তি, কত অন্যায় করে আজকে মাফিয়া তন্ত্র চালু করছে এই সরকার। কারণ গণতন্ত্র হত্যা করে, কন্ঠের স্বাধীনতা হত্যা করে, কথা বলার স্বাধীনতা হত্যা করে, গণমাধ্যমের স্বাধীনতাকে হত্যা করে দেশ চালাতে গেলে মাফিয়াদেরকে দরকার। আর যে সরকার এই মাফিয়াদেরকে দিয়ে দেশ চালায় সে নিজেও মাফিয়া।
রিজভী বলেন, আল-জাজিরার যিনি বার্তা বিভাগের প্রধান তিনি একজন ইউরোপীয়ান ব্যক্তি। তিনি বিবিসিকে বলেছেন, আমরা উদ্বিগ্ন। যাদের কাছ থেকে আমরা তথ্য পেয়েছি, তথ্য চিত্র পেয়েছি তাদের পরিবারের ওপর অত্যাচার হবে,তাদের পরিবারের কাউকে গুম করা হবে এই নিয়ে আল-জাজিরার বার্তা প্রধান উদ্বিগ্নতা প্রকাশ করছেন। এই সমস্ত ঘটনা, দেশের কুকীর্তি-অপকীর্তি ঢাকার জন্য দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানের খেতাব কেড়ে নিচ্ছে। এটা তো আপনারা অপমানিত হবে। জিয়াউর রহমানের কিছু হবে না। তিনি একজন সুপ্রতিষ্ঠিত বীর মুক্তিযোদ্ধা। নিজের কমান্ডারকে হত্যা করে স্বাধীনতা ঘোষণা করে পুরো জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধে অনুপ্রাণিত করেছেন। জিয়্উার রহমানের বীর উত্তম খেতাব কেড়ে নেয়ার অপচেষ্টাকারীদের একদিন ‘জনতার আদালতে’ বিচার হবে বলে হুশিয়ারি দেন রিজভী।
জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব-এর উদ্যোগে জিয়াউর রহমানের বীর উত্তম বাতিলের অপচেষ্টার প্রতিবাদে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব আবদুস সালামের পরিচালনায় মানববন্ধনে বিএনপির স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সহ প্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম, ড্যাবের সিরাজুল ইসলাম, জহিরুল ইসলাম শাকিল, মেহেদী হাসান, সরকার মাহবুব আহমেদ শামীম, মহানগর যুব দলের গোলাম মাওলা শাহিন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে ড্যাবের শাহ আমান উল্লাহ, এরফানুল হক সিদ্দিকী, পারভেজ রেজা কাকন, নিলোফার ইয়াসমীন, সরকার মাহবুব আহমেদ শামীমসহ চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ