ঢাকা, সোমবার 1 March 2021, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৬ রজব ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

ভ্যাকসিন কর্মসূচি শুরু হচ্ছে আজ

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকারের আনা প্রথম চালানের ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমতি দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর। প্রথম এই চালানে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ‘কোভিশিল্ড’ ব্র্যান্ডের ৫০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন এনেছে সরকার।

মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীর মহাখালীতে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, দেশে আনা ভ্যাকসিনের প্রতিটি লটের নমুনা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করা হয়েছে। আগামীকাল এই ভ্যাকসিন দিয়েই শুরু হবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগ।

মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান আরও বলেন, বাংলাদেশ সরকারের আনা এই ভ্যাকসিন অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি। যুক্তরাজ্যের সর্বোচ্চ সংস্থা এই ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমোদন দিয়েছে এবং সেই দেশে এটি প্রয়োগ করা হচ্ছে। ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মানদণ্ডে বিশ্বমানের ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। গত ১৬ জানুয়ারি থেকে ভারতে এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করছে। ভারতের সেই সব কাগজও পরীক্ষা করা হয়েছে।

এর আগে, ২৫ জানুয়ারি ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান সারাবাংলাকে বলেন, দেশে আসা ৫০ লাখ ডোজ নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) ভ্যাকসিনের ল্যাব টেস্টিং রিপোর্ট দেওয়া হতে পারে।

এদিন ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট থেকে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৫০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেশে পৌঁছায়। এরপর ভ্যাকসিন রাখা হয় বেক্সিমকোর ওয়ারহাউজে। ল্যাব টেস্টিং রিপোর্ট পাওয়ার পরে সেখান থেকে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হবে।

এর আগে, সোমবার বেক্সিমকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের বলেন, সিরাম ইনস্টিটিউট আমাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল ২১ থেকে ২৫ তারিখের মধ্যে ৫০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন আসবে। সেই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পাঠানো ৫০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন আমরা আজ গ্রহণ করলাম। এগুলো টঙ্গীতে কোল্ড চেইন মেনটেইন করে তৈরি নতুন ওয়্যারহাউজে রাখা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ