ঢাকা, সোমবার 1 March 2021, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭, ১৬ রজব ১৪৪২ হিজরী
Online Edition

২৩২টি পোশাক কারখানা বন্ধ, চাকরি হারিয়েছে ৩ লাখ ৫৭ হাজার শ্রমিক: সিপিডি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক: আজ শনিবার বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত এক সেমিনারে প্রকাশিত গবেষণায় বলা হয়, এরমধ্যে বিজিএমইএ-ভুক্ত কারখানা রয়েছে ১৮০টি। করোনাকালে পোশাক কারখানা সংকোচিত হয়েছে ১১ শতাংশ।

কেবল ৭০ শতাংশ কারখানা বেতন দিতে পেরেছে শ্রমিকদের। গেল এপ্রিল এবং মে মাসে সবচেয়ে বেশি আর্থিক সংকট তৈরি হয়। করোনার শুরুতেই সংকটে পড়ে ছোট-বড় অনেক কারখানা।

ভার্চ্যুয়াল আলোচনায় অংশ নিয়ে এমপি শিরীন আখতার বলেন, পোশাক খাতকে এগিয়ে নিতে নতুন করে ভাবতে হবে। করোনা পরবর্তী পোশাক খাতের সঙ্গে শ্রমিকদের খাপ খাওয়াতে প্রশিক্ষণ বাড়ানোর ওপর জোর দেন তিনি।

বিকেএমইএ সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বলেন, মাত্র ১০ শতাংশ কারখানা লাভে রয়েছে। আর ৮০ শতাংশ কারখানা লোকসানের মধ্যেও উৎপাদন চালিয়ে নিচ্ছেন মালিকরা। সব ধরনের কাঁচামালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার পরেও ক্রেতারা তৈরি পোশাকের মূল্য বাড়ায়নি। এই জায়াগায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সিপিডির গবেষণা পরিচালক গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, জরিপকালে কোনো শ্রমিক তথ্য দিতে রাজি হননি। কারণ যদি কেউ করোনা শনাক্ত হন। আর এটা জানাজানি হলে, তাহলে তাকে বেতন ছাড়াই ছুটি কাটাতে হবে। এই ঝুঁকি কেউ নিতে চাননি। তাই তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।

ডিএস/এএইচ

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ