রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

ডুমুরিয়ায় বেশি দামে বিসিআইসি সার বিক্রির অভিযোগ!

ডুমুরিয়া সংবাদদাতা : খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় খুচরা কার্ডধারী বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে বিসিআইসি সার (টিএসপি ও ডিএপি) সরকারি নির্ধারিত মূল্য থেকে বেশি দামে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। ফলে ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে কৃষক।

জানা গেছে, যে সব অঞ্চলে ধান ও সবজি উৎপাদন হয় তার মধ্যে ডুমুরিয়া উল্লেখযোগ্য। এ অঞ্চলের মানুষের কৃষি ফসল উৎপাদন করেই জীবন-জীবিকা চলে। ডুমুরিয়ার ১৪টি ইউনিয়নে ফসল উৎপাদন বাড়াতে ১২৬ জন কার্ডধারী বিক্রেতা রয়েছেন। যারা সরকারি নির্ধারিত মূল্যে কৃষকের কাছে সার সরবরাহ করেন। কিন্তু সরকার সারের দাম না বাড়ালেও এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী (খুচরা কার্ডধারী) কৃষকদের কাছ থেকে বেশি দাম নিচ্ছেন। ফলে কৃষকরা ফসল উৎপাদনে ধাক্কা খাচ্ছেন। 

কুলবাড়িয়ার কৃষক নাজের আলি মোড়ল ও আরাজী ডুমুরিয়ার কৃষক রবিউল ইসলামসহ অন্য কৃষকরা জানান, ডিএপি সারের সরকারি মূল্য কেজি প্রতি ১৬ টাকা নির্ধারিত থাকলেও অনেক বিক্রেতা নিচ্ছেন ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকা ও টিএসপি সারের মূল্য ২২ টাকা নির্ধারিত থাকলেও নেয়া হচ্ছে ২৬ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত। এ ক্ষেত্রে ডিলাররা তাদের কোন পাকা রসিদ (ভাউচার) দিচ্ছেন না। রসিদ না দেয়ায় তারা সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাও নিতেও পারছেন না। এতে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

এ ব্যাপারে ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার মো. মোছাদ্দেক হোসেন বলেন, তার কাছে এ ধরনের অভিযোগ এসেছে। তাই বেশি দামে বিক্রি বন্ধে অচিরেই অভিযান পরিচালনা করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ