রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১
Online Edition

এক টিকায় লাভ ১১ ডলার ॥ এরা কি মানুষ- মান্না

স্টাফ রিপোর্টার: বেসরকারি কোম্পানির মাধ্যমে সরকারের টিকা সংগ্রহের সমালোচনা করেছেন নাগরিক ঐক্যর আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেছেন, অক্সফোর্ড টিকা বেচে দুই ডলার ৭০ সেন্টে। দুই ডলারের টিকা বেক্সিমকো বেচবে ১৩ ডলারে। একটা টিকাতে লাভ করবে ১১ ডলার এরা কি মানুষ যারা ক্ষমতায় আছে?

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে শহীদ আসাদ স্মরণে এক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি। এর আয়োজন করে শহীদ আসাদ ফাউন্ডেশন। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন ছাড়াও আলোচনা সভায় আয়োজক সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, বেক্সিমকোর সাথে ব্যবসা হবে সরকারের। আমি এখান থেকে ঘোষণা করতে চাই, এই ব্যক্তিগত কোম্পানির মাধ্যমে ব্যবসা বন্ধ করতে হবে। টিকা নিয়ে তাদের (বেক্সিমকো) ধান্দাবাজি ব্যবসা সরকারের সাথে মিলে এটা করতে দেব না। আলোচনা সভায় মান্না আরও বলেন, দেশের গরীব মানুষ টিকা পাবে তার কোনো গ্যারান্টি আছে? ওরা যে রকম লিস্ট দিয়েছে, কেবলমাত্র সরকারের ক্ষমতায় যারা থাকবে তাদেরকে প্রথম টিকা দেওয়া হবে। আপনি দেখেন ইংল্যান্ডে প্রথম টিকা দেওয়ার নিয়ম কী করা হয়েছে? ফ্রান্স, আমেরিকা, পুরো ইউরোপ কী করেছে? আর বাংলাদেশ কী করছে?’

প্রধানমন্ত্রী বক্তৃতা করেছিলেন মানুষকে বিনা পয়সায় টিকা দেব- সেই কথা সম্পূর্ণ ভুলে গেছেনে। যারা বলেছিলেন ১০ টাকা করে চাল খাওয়াব, এখন ৫০ টাকা চাল হয়েছে। মিথ্যাবাদী, ভ-, প্রতারক। এদের সঙ্গে আপস করা যাবে না’ এই অবস্থা থেকে উত্তরণে শহীদ আসাদের আদর্শ অনুসরণ করে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রতিদিন ক্ষমতাসীনরা ইতিহাস গিলে খাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। মান্না বলেন, এখন যারা ক্ষমতায় আছে তারা আসাদকে স্মরণ করবে না। তারা তো প্রতিদিন ইতিহাস গিলে খাচ্ছে। সব কিছু একজন করেছেন, আর কেউ নেই। সব কৃতিত্ব, প্রশংসা একজনের প্রাপ্য, আর কেউ পেতে পারে না। ১১ দফা আন্দোলন না হলে এক দফা তথা স্বাধীনতা যুদ্ধ পর্যন্ত যেত কীভাবে, সেটা বড় প্রশ্ন। তারপরও এই দিনকে, এই ঘটনাকে তারা (আওয়ামী লীগ) কবর দিতে চায়। যে কারণে আসাদ বাংলাদেশের মানুষের কাছে এখন আর ওইরকম আইকন নেই। তিনি আরও বলেন, ইতিহাস এমন যে, কোনো না কোনোভাবে মানুষের কাছে আলো ছড়ায়। চেষ্টা করলে কোনো শাসক সেটা বদলে দিতে পারে না। ইচ্ছা করলেই ইতিহাস বানানো যাবে না, ইতিহাসের কান টেনে লম্বা করা যাবে না। ইতিহাসকে যেমন খুশি তেমন রঙতুলি দিয়ে আঁকতে পারেন না।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, আইয়ুব খান তো স্বৈরশাসক ছিলেন, জবরদস্তি করে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। ১০ বছর ছলে-বলে-কৌশলে ক্ষমতায় ছিলেন। তাকে সবাই মনে করছিল আয়রনম্যান। ওনাকে কেউ সরাতে পারবেন না। অথচ আইয়ুব খানকে চলে যেতে হয়েছে। তিনি বলেন, আইয়ুব খানের পুলিশ যখন গুলী করত তখন তারা একটা লাল ফিতা দিয়ে রাখত। লাল ফিতা পার হলে গুলী করা হতো। এখন গলির মধ্য দিয়ে বেরোনোর সাথে সাথে গুলী করা হয়। এখন মানুষের জীবন কচুপাতার পানির মতো। এখন যা হয়েছে এতটাও খারাপ সময় তখনও (পাকিস্তান আমলে) ছিল না। আসাদের থেকে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে। সব ধরনের অন্যায়ের বিরোধিতা করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ